খুলনায় এক তৃতীয়াংশ নারী নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ আ’লীগের

0
244

ইয়াছিন আরাফাত রাকিব:
৩৩ শতাংশ নারীদের খুলনা জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটিতে অন্তর্ভুক্তির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আগামী কাউন্সিল থেকে এই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করা হবে। এর মাধ্যমে খুলনার আওয়ামী লীগে এক তৃতীয়াংশ নারী নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে। দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক চিঠিতে এমন নির্দেশনা প্রদানের সাথে বাস্তবায়নে মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দদের জোরালো পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন সূত্র জানায়।
খুলনা জেলা আ’লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ দৈনিক খুলনা টাইমসকে বলেন, আমরা দলের এক তৃতীয়াংশ নারী নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছি। অচিরেই দলের কাউন্সিল সম্পন্ন হবে। এবারে খুলনা জেলা কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে অন্তত: ৩০ ভাগ নারী নেত্রী রাখা হবে। দল ও সহযোগী সংগঠনে দীর্ঘদিন নেতৃত্ব দিয়ে আসা ত্যাগী ও পরীক্ষীত নেত্রীদের মধ্যে থেকে নির্বাচিত করা হবে।
খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মুহাম্মদ মিজানুর রহমান মিজান দৈনিক খুলনা টাইমসকে বলেন, এবারের মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটিতে অন্তত: ২৫ ভাগ নারী নেতৃত্ব রাখার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এজন্য খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হবে।
দলীয় সূত্র জানান, ইতোপূর্বে ১০ শতাংশ নারী নেতৃত্ব রয়েছে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটিতে। এটাকে ২৫ শতাংশে উন্নীত করার নির্দেশ আগেই দিয়েছেন দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। ওই নির্দেশনা বলা হয়, দলের নেতৃত্ব নির্বাচনে অন্তত ২৫ ভাগ নারী কোটা রাখতে হবে। সেই সাথে নারী নেতৃত্ব তৈরী, দলীয় কর্মকান্ডে নারীদের সক্রিয় অংশগ্রহন এবং নারীদের সামনের কাতারে নিয়ে আসতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। এরই ধারাবাহিকতায় এবারের কাউন্সিল শেষে দলের জেলা ও মহানগর কমিটিতে ২৫ ভাগ নারী নেতাদের রাখার উদ্যোগ হাতে নেয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ খুলনা বিভাগের নেতৃবৃন্দের সাথে বিভাগীয় পরিকল্পনা সভার আয়োজন করে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল খুলনা রিজিওন। সভায় আরপিও অনুযায়ী আগামী কাউন্সিলে ৩৩ শতাংশ নারীদের কমিটিতে অন্তর্ভুক্তি, দলের ভেতর প্রশিক্ষিত রাজনৈতিক কর্মী তৈরী করা, দলের আভ্যন্তরীন গণতন্ত্রের চর্চা বিষয়ক আলোচনা করা হয়। সভায় খুলনা জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ পরিকল্পনা সভায় অংশ গ্রহন করেন।