খুমেক হাসপাতালের পরিচালকের বিরুদ্ধে সরকারি গাড়ি অপব্যবহারসহ নানা অভিযোগ

0
42

নিজস্ব প্রতিবেদক:
খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের পরিচালকের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উঠেছে। ক্ষমতা অপব্যবহার করে সরকারি ব্যবহৃত গাড়ি নিজের স্বার্থে অন্যদেরকেও ব্যবহার করাচ্ছেন। এছাড়া চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের চরম খারাপ আচরণের অভিযোগ উঠেছে। সার্বিক বিষয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মুন্সী রেজা সেকেন্দার এ প্রতিবেদককে জানান, খুলনা থেকে সরকারি গাড়ি নিয়ে ঝিনাইদহে নিজ বাড়িতে যাওয়ার কথা স্বীকার করেন। এছাড়া অন্য কেউ যদি গাড়িটি ব্যবহার করেন আমি ওই সময় গাড়িতে উপস্থিত থাকি। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী গাড়িটি ব্যবহার করছি বলে তিনি দাবি করেন। তার গাড়ি আটকের বিষয়ে কোন ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি করেন। খুমেক হাসপাতালের একাধিক সূত্র মতে, স¤প্রতি হাসপাতালের পরিচালকের গাড়ি আউটসোর্সিং এর কতিপয় কর্মচারিরা ঝিনাইদহের উদ্দেশ্যে রওনা দিলে পথিমধ্যে ফুলতলাস্থ স্থানীয় বাসিন্দারা আটক করেন। এ সময় পরিচালকের গাড়িতে আপনারা কারা জানতে চাইলে তারা আউটসোর্সিয়ে নিয়োজিত বলে পরিচয় দেন। তাদের সন্দেহ হলে গাড়িটি আটক করেন। পরবর্তীতে ছেড়ে দেন।
খুমেক হাসপাতালের গ্যারেজের সামনে এক পুলিশ কর্মকর্তার মটরসাইকেলটি পরিচালক লাথি মেরে ফেলে দেন। পড়ে গিয়ে মটরসাইকেলটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এ সময় চিকিৎসা নিতে আসা জনৈক পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে মটরাসাইকেল লাথি মারার বিষয় জানতে চাইলে পরিচালক ডাঃ মুন্সী রেজা সেকেন্দার খারাপ আচরণ করেন। তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার এমন অপব্যহারের চিকিৎসা নিতে আসা রোগী বা রোগীর স্বজনরা ছাড়াও হাসপাতালের চিকিৎসকদেরকেও অপমান করতে বাদ রাখেননি। এতে দিনকে দিন ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছেন ভুক্তভোগী সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকরা।
হাসপাতালের সূত্রে জানা গেছে, পরিচালক হাসপাতালে নিজের লোক ঢোকাতে আউটসোর্সিংয়ে নিয়োজিত একাধিক লোক নিজ ক্ষমতার বলে বাদ দিয়ে দেন। আউটসোর্সিং এর নিয়োজিত গরীবÑঅসহায় এক সন্তান সম্ভবনা এক মহিলার আকুতি মিনুতি করেও রেহাই পাননি। তাকে হাসপাতাল থেকে তাড়িয়ে দেন।


একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here