২ রান খরচাতেই উইকেট পাচ্ছেন ফাহিমা!

0
270

স্পোর্টস ডেস্কঃ

হল্যান্ডে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইয়ে অসাধারণ বোলিং করছেন ফাহিমা। বাংলাদেশ নারী দলের এই লেগ স্পিনার ৩ ম্যাচে পেয়েছেন ৮ উইকেট। টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত তিনিই সর্বোচ্চ উইকেট–শিকারি। উইকেট-প্রতি ফাহিমার খরচ করতে হয়েছে মাত্র ২.৬১ রান

পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে খুব একটা ‘ভালো বোলিং’ হয়নি ফাহিমা খাতুনের। ৩ ওভারে ১০ রান দিয়ে ১ উইকেট। টি-টোয়েন্টিতে ৩.৩৩ ইকোনমির পরও ভালো বোলিং হয়নি? পরের দুই ম্যাচে ফাহিমা যে বোলিং করেছেন, তাতে এমন মনে হতেই পারে। ফাহিমা হল্যান্ডের বিপক্ষে ৩ ওভারে ২ মেডেনে ৩ রান দিয়ে পেয়েছেন ৩ উইকেট। ইকোনমি ১! আর কাল আমিরাতের বিপক্ষে বাংলাদেশের হয়ে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টিতে করলেন হ্যাটট্রিক। ম্যাচে তাঁর বোলিং বিশ্লেষণ: ৪ ওভারে ৮ রানে ৪ উইকেট।

মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ৩ ম্যাচে ১০ ওভার বোলিং করেছেন ফাহিমা। বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের এই লেগ স্পিনার ২১ রানে পেয়েছেন ৮ উইকেট। টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত তিনিই সর্বোচ্চ উইকেট-শিকারি। উইকেট-প্রতি খরচ করতে হয়েছে মাত্র ২.৬১ রান। টুর্নামেন্ট স্মরণীয় করে রাখতে একজন বোলারের আর কী লাগে!

আরব আমিরাতের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে রেকর্ড বইয়ে নাম লিখিয়েছেন, সেই আনন্দ তো আছেই। ফাহিমার আনন্দ দ্বিগুণ হয়েছে দল সেমিফাইনাল নিশ্চিত করায়, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটা আমার প্রথম হ্যাটট্রিক। অসাধারণ এক মুহূর্ত ছিল আমার জন্য। আমি অনেক খুশি। আমরা সেমিফাইনালে চলে গেছি। সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ।’

কাল ১৩তম ওভারে ফাহিমার হ্যাটট্রিকের আগেও আমিরাতের অবস্থান একেবারে শোচনীয় ছিল না। ১২ ওভারেও তাদের রান ছিল ২ উইকেটে ৩১। ফাহিমার হ্যাটট্রিক আর রুমানা আহমেদের অসাধারণ বোলিংয়ের পর স্কোরটা হয়ে গেল ৮ উইকেটে ৩৩। ২ ওভারে ২ রান যোগ করতে আমিরাতের পড়েছে ৬ উইকেট! আমিরাতের বিপক্ষে যে দুর্দান্ত বোলিংটা করেছেন, কী পরিকল্পনায় এগিয়েছেন ফাহিমা? পরিকল্পনাটা তাঁর খুব একটা জটিল নয়। সহজ ভাবনাতেই কঠিন পরীক্ষা নিয়েছেন আমিরাতের, ‘আমি আমার সেরাটাই চেষ্টা করেছি, এটুকুই। সেরা বোলিংটাই করেছি এবং উইকেট পেয়েছি।’

বাংলাদেশ মেয়েদের অভিযান শেষ হয়নি এখনো। ১২ জুলাই স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনাল। বাছাইয়ের সেরা দুটি দল খেলতে পারবে আগামী নভেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। বাছাই পর্বে যে অসাধারণ বোলিং করেছেন, ফাহিমাকে এটি ধরে রাখতে হবে টুর্নামেন্টের শেষ পর্যন্ত। অন্তত ফাইনালে যেতেই হবে। তবে কদিন আগে এশিয়া কাপজয়ী বাংলাদেশের স্বপ্নটা নিশ্চয়ই আরও বড়।