২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়ে আ‘লীগ কার্যালয় সভা অনুষ্ঠিত

0
392

বিজ্ঞপ্তি: খুলনা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ বলেছেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের মধ্য দিয়ে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। রায়ের প্রতি সম্মান জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্রেনেড হামলার ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী তারেক জিয়ার যাবজ্জীবন কারাদ-ের পরিবর্তে ফাঁসি আদেশ প্রত্যাশা করেছিলো দেশবাসি। তারেক জিয়ার ফাঁসির আদেশের জন্য উচ্চাদালতে আপিল করার জন্য রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীর প্রতি আহবান জানান নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, দেশকে উন্নত বিশ্বে পরিণত করতে হলে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আর আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হলে সকল হত্যা ক্যু আর ষড়যন্ত্রের রাজনীতি আইনের মাধ্যমে চিরতরে বন্ধ করতে হবে। তাহলে দেশ যেমন এগিয়ে যাবে উন্নত বিশ্বের দিকে তেমনি দ্রুত প্রতিষ্ঠিত হবে গণতন্ত্র। সেজন্যে দলের নেতাকর্মীদের আরো ত্যাগ স্বীকার করে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চতুর্থ বারের মত রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এনে দেশে স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্ম শত বার্ষিকী উদযাপন করতে হবে।

বুধবার গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের প্রতি সম্মান জানিয়ে এবং তারেক জিয়ার ফাঁসির দাবিতে সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি, আওয়ামী লীগ নেতা এমডিএ বাবুল রানা, কামরুজ্জামান জামাল, আকতারুজ্জামান বাবু, শ্যামল সিংহ রায়, মফিদুল ইসলাম টুটুল, এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, তসলিম আহমেদ আশা, হাজী মো. নুরুজ্জামান, রনজিত কুমার ঘোষ, শেখ মো. আবু হানিফ, শফিকুর রহমান পলাশ, শেখ শাহজালাল হোসেন সুজন, পারভেজ হাওলাদার। সভা পরিচালনা করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ।

এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা শেখ হায়দার আলী, রফিকুর রহমান রিপন, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, শেখ নুর মোহাম্মদ, মাহাবুবুল আলম বাবলু মোল্লা, মালিম সরোয়ার উদ্দিন, খান সাইফুল ইসলাম, সাব্বির আহমেদ শুভ, চৌধুরী মিনহাজ উজ্জামান সজল, ফেরদৌস হোসেন লাবু, আব্দুল হাই পলাশ, জাহিদুল খলিফা, মো. মোতালেব মিয়া, শেখ এশারুল হক, ফয়েজুল ইসলাম টিটো, আতাউর রহমান শিকদার রাজু, মো. শিহাব উদ্দিন, শেখ মো. রুহুল আমিন, এস এম আকিল উদ্দিন, আমির হোসেন, মুন্সি নাহিদুজ্জামান, এস এম হাফিজুর রহমান হাফিজ, কামরুল ইসলাম, মোর্শেদ আহমেদ রিপন, জাহিদুল খলিফা, সোহেল বিশ্বাস, রনবীর বাড়ৈ সজল, সোহান হোসেন শাওন, জব্বার আলী হিরা, ঝলক বিশ্বাস, রেদওয়ান মারুফ, আলিমুল জিয়া, জোয়েব সিদ্দিকী, চয়ন বালা সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। সমাবেশ শেষে এক বিশাল মিছিল নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।