১২ নভেম্বরকে ‘উপকূল দিবস’ ঘোষণার আহবান

0
716

এম সাইফুল ইসলাম:
১৯৭০ সালের এই দিনে বাংলাদেশের উপকূলের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড়ে সরকারী হিসাবমতে প্রায় পাঁচ লাখ এবং বেসরকারী হিসাবে প্রায় দশ লাখ মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল। ‘ভোলা সাইক্লোন’ নামের ঘূর্ণিঝড়টি চূর্ন বিচূর্ন করে দেয় উপকূলবাসীর জমানো স্বপ্ন-আকাঙ্কা।। ভিটে মাটি হারিয়ে পথে বসেন হাজারো মানুষ। গোটা উপকূল পরিণত হয় বিরান জনপদে। প্রতি বছর এই দিনটি এলে হারানো স্বজনদের স্মরণ করেন স্বজনহারা মানুষরা।
বাগেরহাটের শরনখোলা উপকূলের বাসীন্দা মিডিয়া কর্মি শান্তানূর খোকন জানান, ওই ঘূর্ণিঝড়টি ৮ই নভেম্বর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট হয়। ক্রমশ শক্তিশালী হতে হতে এটি উত্তর দিকে অগ্রসর হতে থাকে। ১১ নভেম্বর এটির সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটারে পৌঁছায়। ওই রাতেই উপকূলে আঘাত হানে।
এ পর্যন্ত রেকর্ডকৃত ঘূর্ণিঝড় সমূহের মধ্যে এটি সবচেয়ে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়। সর্বকালের সবচেয়ে ভয়ংকর প্রাকৃতিক দুর্যোগ হিসেবেও এটিকে অ্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় পরিমাপক সিম্পসন স্কেলে ক্যাটাগরি ৩ মাত্রার ঘূর্ণিঝড় ছিল এটি। ওই ঘূর্ণিঝড়ে প্রায় পাঁচ লাখ লোকের প্রাণহানি ঘটে। এই ঘূর্নিঝড়ে ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলায়ই শুধু এক লাখ ৬৭ হাজার মানুষের মধ্যে ৭৭ হাজার মানুষ প্রাণ হারান।
সূত্র বলছে, প্রলয়ংকরী ‘ভোলা সাইক্লোন’-এর আগে এবং পরেও উপকূলের ওপর দিয়ে অনেকগুলো ঘূর্ণিঝড় বয়ে গেছে। কিন্তু ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির বিচারে ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বরের ঘূর্ণিঝড় সবচেয়ে ভয়ংকর বলে প্রমাণিত। স্বল্প পরিসরে হলেও এত বছর পরেও ওই দিবসটি পালিত হয়। দিনটিকে স্মরণ করে গণমাধ্যমও।
বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানা যায়, ৭০ এর আগে ১৮৭৬ খ্রিস্টাব্দে ‘বাকেরগঞ্জ সাইক্লোন’এ প্রায় দুই লাখ লোক প্রাণ হারিয়েছিল। এরমধ্যে এক লাখ লোকের মৃত্যু ঘটে দুর্ভিক্ষ ও মহামারীতে। ১৫৮২ সালে বাকেরগঞ্জ তথা বর্তমান বরিশাল অঞ্চলে আরেকটি ঘূর্ণিঝড়ের কথা জানা যায়। ওই ঘূর্ণিঝড়েও দুই লাখ লোক প্রাণ হারান।
তথ্যসূত্র বলছে, ১৯৭০ সালের পরের ঘূর্ণিঝড়গুলোর মধ্যে ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিলের ঘূর্ণিঝড় ছিল ভয়াবহ। এতে প্রায় এক লাখ ৪০ হাজার লোকের প্রাণহানি ঘটে। এ ছাড়া ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর সিডর, ২০০৮ সালের ৩ মে নার্গিস, ২০০৯ সালের ২৫ মে আইলা, ২০১৩ সালের ১৬ মে মহাসেন, ২০১৪ সালের ২৮ অক্টোবর নিলোফার, ২০১৬ সালের ২১ মে রোয়ানুসহ বেশকিছু ছোটবড় ঘূর্ণিঝড় উপকূলে আঘাত হানে। তবে ৭০ এর ঘূর্ণিঝড়ের ভয়াবহতা অন্যকোনো ঝড় অতিক্রম করতে পারেনি।তবে ৭০-এর মত এত বড় দুর্যোগের মুখে আমরা আর পড়িনি। সেজন্য এই দিনটিকেই আমরা উপকূল দিবস ঘোষণার দাবি জানাই।

(লেখক, সভাপতি উপকূল বাচাঁও আন্দোলন, খুলনা)।