হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ উপেক্ষা করেই খানজাহান আলী দীঘির ভরাটের চেষ্টা!

0
312

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনাটাইমস:
মুজগুন্নীর ঐতিহ্যবাহী খানজাহান আলী (রহঃ) দীঘির ভরাট বন্ধে হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ থাকা সত্তে¡ও দীঘিটিতে ময়লা ফেলে এর শ্রেণী পরিবর্তন ও ভরাটের অপচেষ্টা চলছে। শনিবার সকালে মুজগুন্নী খানজাহান আলী দীঘি রক্ষা কমিটি ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাবে এক প্রতিবাদ সভায় এ কথা বলেন।
এসময় বক্তারা বলেন, হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ থাকা সত্তে¡ও জনৈক ভরাটকারী শেখ মারুফুল হক, জাকির হোসেন মৃধা এবং কাজী মাহাবুব এর বিরূদ্ধে পরিবেশ অধিদপ্তরের মামলা চলমান থাকা সত্তে¡ও তারা আইনকে অগ্রাহ্য করে বিভিন্নভাবে এই দীঘিটিকে নষ্ট করার অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে। তারা ময়লা ফেলে এবং মাছের খামারের সাইনবোর্ড লাগিয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করছে।
বক্তারা আরো বলেন, খানজাহান আলী (রহঃ) দীঘিটি প্রায় ৭০০ বছরের পুরাতন একটি দীঘি। এই দীঘিটি হযরত খানজাহান আলী (রহঃ) খনন করেছেন। এলাকার মানুষ এই দীঘিটিকে একটি পবিত্র স্থান হিসেবে বিশ্বাস করে থাকেন। এছাড়া ২০০০ সালের প্রাকৃতিক জলাধার সংরক্ষণ আইনের বিবেচনায় এই দীঘিটি কোনভাবে ভরাট করা যাবে না। অথচ এই দীঘিটিকে নিয়ে শ্রেণী পরিবর্তনের জন্য নানান অপকৌশল চালাচ্ছে যা আইন এবং মানবতা পরিপন্থী। বক্তারা তাদের বক্তব্যে ময়লা ফেলে দীঘির পানি দূষিত করা, মাছের খামারের সাইনবোর্ড লাগিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করা এবং দীঘি ভরাটের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহŸান জানান এবং এই অপতৎপরতাকারীদের বিরূদ্ধে যথাযোগ্য ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ কামনা করেছেন।
প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন মুজগুন্নী খানজাহান আলী (রহঃ) দীঘি রক্ষা কমিটির আহŸায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াদুদ মল্লিক এবং সভা পরিচালনা করেন সদস্য সচিব মোল্লা হায়দার আলী। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এস এম আলমগীর হোসেন বাবলু, শাহ মোঃ মাশুকুল হুদা মাসু, কে এম আইয়ুব আলী, শেখ আবুল হোসেন নবো, এস এম খসরুজ্জামান পলাশ, কাজী ইউসুফ আলী, মোল্লা হারুনার রশীদ, সরদার আসাদুজ্জামান আসলাম, এ্যাড. জাকিরউদ্দিন আহমেদ লিটন, সরদার হাফিজুর রহমান প্রমূখ।#