স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে শেখ হাসিনার ৪১ এর বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়-খুলনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ

0
36

নিজস্ব প্রতিবেদক:
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে দাকোপ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আয়োজনে বিজয় সমাবেশ, শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান করা হয়। শনিবার বিকালে দাকোপ আওয়ামীলীগ কার্যারয় চত্বরে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।এদিন বৈরী আবহাওয়ার মাঝেও সমাবেশে মিছিল সহকারে শত শত নেতাকর্মী ও সমর্থকে সমাবেশ স্থল জনসভায় রুপ নেয়।

প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা শেখ মো: আবু হানিফ। প্রধান বক্তা ছিলেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক এস এম আজিজুর রহমান রাসেল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ মো: আবু হানিফ মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ বিনির্মাণে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার ৪১ এর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। সেই সাথে তিনি আরও বলেন আমাদের মানুষের কল্যানে কাজ করতে হবে। মানুষের কল্যানে কাজ করাই রাজনীতি, আর মানুষের কল্যানে কাজ করাই আওয়ামীলীগের রাজনীতি। এছাড়াও তিনি বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা জেগে থাকেন বিধায় বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষ নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারি।তাই স্বেচ্ছাসেবকলীগকে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ভ্যানগার্ডের মত পাহারা দিতে হবে। সেই কারনেই তৃনমূল পর্যায়ে সেচ্ছাসেবকলীগকে শক্তিশারী ভূমিকা রাখতে হবে। সেই সাথে তিনি খুলনা জেলার স্বেচ্ছাসেবকলীগকে একটি শক্তিশালী ও মডেল হিসাবে গড়ে তুলবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সমাবেশের প্রধান বক্তা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক এস এম আজিজুর রহমান রাসেল বলেন, আধুনিক বাংলার রুপকার বলে যদি কাউকে জেনে থাকি তিনি হলে জননেত্রী শেখ হাসিনা। নেত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে খুলনা জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগকে পুনর্গঠিত করে বঙ্গবন্ধু আদর্শের সৈনিকদের সমন্বয়ে একটি আধুনিক ও শক্তিশালী সংগঠনে রুপ নিবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

দাকোপ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক জি এম এ রেজার সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব উত্তম রায় ও যুগ্ম-আহ্বায়ক কুমারেশ বিশ্বাস এর সঞ্চালনায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দাকোপ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক বিনয় কৃষ্ণ রায়, অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন পৌরসভার মেয়র বাবুর সনদ কুমার বিশ্বাস,  পঞ্চানন মন্ডল, রুহুল মন্ডল, আক্কেল আলী, জয়ন্তী রানী সরদার, মাসুম আলী ফকির, হুমায়ুন কবীর, আবুল কালাম আজাদ, রুহুল আমিন রবি, আনিচুল হক, হুমায়ুন কবির, মোঃ মিজানুর রহমান মিজান, গাজী ইদ্রিস আলী, আবুল বাশার, খান ফরহাদুজ্জামান সুমন, রাজীব দাস, মোঃ ফেরদাউসুর রহমান, কুমারেশ মন্ডল, মঈন উদ্দিন মাসুদ রানা, মোঃ রাসেল বুলু, আবির মালিক, এফ এম হাবিবুর রহমান, আনসার আলী বাদল, মোসলেম শেখ, মোঃ ওহিদুজ্জামান, শেখ আলী রেজা, আবুল হাসান পলাশ, শেখ মইনুদ্দিন, লিন্টন দাস, সাগর গাজী, ছাত্রনেতা অরিন্দম গোলদার, সরদার কবিরুল ইসলাম, এইচ এম কামাল হোসেন, মিরাজুল ইসলাম, ইমরান হোসেন জাকি, রতন মন্ডল, জাহিদুর রহমান মিল্টন, মাহমুদুন্নবী মিল্টন, যুব্রাজ শেখ, আবু সালেহ বাবু, হামীম কবীর রূবেল,অসীম রায়, সুরজিৎ মন্ডল, শেখ হেলাল বাবু, শেখ মোহাম্মদ রাসেল, মোঃ রায়হান শেখ মুন্না, আব্দুল মান্নান, সাইফুল ইসলাম, ফয়সাল শরীফ, মোশাররফ সরকার প্রমুখ।