সৌদিতে নিহতদের পরিবারে শোকের মাতম

0
321

অনলাইন রিপোর্ট : সৌদি আরবে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত সাত বাংলাদেশির পরিবারে চলছে শোকের মাতম। এমন মৃত্যুতে অনিশ্চিয়তায় পড়েছে তাদের পরিবার। মরদেহ দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার দাবি স্বজনদের।

২০০১ সালে সৌদি আরব যান কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের এমরানুল হক সোহেল। গত বছর নিয়ে গেছেন ছোট ভাই ইমামুল হক মুন্নাকে। দুইজনে একটি ওয়ার্কশপ চালাতেন। তাদের টাকায় চলতো পুরো পরিবার। সচ্ছলতাও এসোছিলো। কিন্তু, সিলিন্ডার বিস্ফোরণে সব কিছু ওলটাপালট হয়ে গেল। একই ঘটনায় চৌদ্দগ্রামের সোহেলসহ আরও দুই জন নিহত হয়েছে।

সৌদি আরবের ওই একই বাসায় থাকতেন লক্ষ্মীপুরের কমলনগরের নেছার আহম্মদ ও তার দুই ছেলে জসিম উদ্দিন ও ইব্রাহিম। সেখানে লেপতোষকের ব্যবসা করতেন তারা। বিস্ফোরণে দুই ছেলে মারা গেলেও সে সময় বাসায় না থাকায় বেঁচে যান নেছার আহম্মদ।

সিলিন্ডার বিস্ফোরণে মারা গেছে ফেনীর মহিউদ্দিন রাশেদ। তিন সন্তানকে সুন্দর ভবিষ্যৎ দিতে গেল ছয় ফেব্রুয়ারি সৌদি আরব যান তিনি। সেখানেও বেকার থাকতে হয় আড়াই মাস। বুধবারই কথা ছিলো চাকরিতে যোগ দেয়ার। কিন্তু সেদিনই দুর্ঘটনায় নিহত হন রাশেদ।

সৌদি আরবের হোলাইফা শহরের একটি বাসায় বুধবার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। সেসময় বাসাটির একটি কক্ষে ঘুমিয়ে ছিলেন সাত বাংলাদেশী।