সেপ্টেম্বরই প্রত্যাশার মাস

0
333

খুলনাটাইমস বিনোদন: কখনো হতাশা আবার কখনো প্রত্যাশা। কিন্তু অসংখ্যা হাতাশার মাঝে ঢাকাই সিনেমার প্রত্যাশার হিসেবটা খুব একটা লম্বা নয় বর্তমানে। সারাবছর আমেজ না থাকলেও বছরের দুই ঈদ কেন্দ্র করে দর্শকদের আগ্রহের মূল জায়গা থাকে সিনেমা। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে সিনেমার সংখ্যা যেমন নিয়মিত কমছে সেখানে ঈদে সিনেমার সংখ্যাটাও বাড়ার কোনো অবস্থা নেই। একদিকে হল নিয়ে যেমন হতাশার কথা রয়েছে, তেমনি সিনেমার মোড়ক পাল্টালেও নতুন মোড়কে পুরোনো গল্পে নির্মিত হচ্ছে সিনেমা। মূলধারার বাইরে সিনেমাগুলো দেশ ও দেশের বাইরে বিভিন্ন ফেস্টিভ্যালে প্রশংসা কুড়ালেও ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য দর্শকদের কাছে সিনেমা পৌঁছানো পিছিয়ে থাকছে। এ বছর রোজার ঈদে মুক্তি পেয়েছিল ৩টি সিনেমা। সিনেমাগুলো হলো ‘পাসওয়ার্ড’, ‘আবার বসন্ত’ ও ‘নোলক’। কোরবানির ঈদে সেই সংখ্যাটা নেমে আসে দুটিতে। মুক্তির তালিকায় ছিল ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ ও ‘বেপরোয়া’।গতকাল থেকে শুরু বছরের নতুন আরো একটি মাস। আর ঢালিউডের জন্যও একটি সম্ভাবনাময় মাস বলা যায়। কারণ এই মাসে মুক্তি পাবে ৪টি সিনেমা। যদিও সিনেমাগুলো মুক্তি নিয়ে তেমন কোনো হৈ চৈ নেই। আর ঢাকাই সিনেমার এটি এখন নিয়মিত চিত্র। কারণ সিনেমা মুক্তির পর যেখানে লগ্নি উঠে আসা নিয়ে প্রযোজককে চিন্তায় বসে থাকতে হয় সেখানে প্রচারণার জন্য বাড়তি অর্থ ব্যয়ের ভরসাটা না করতে পারাটাই স্বাভাবিক বিষয়। এই মাসে মুক্তি পাচ্ছে ‘মায়াবতী’, ‘অবতার’, ‘পাগলামি ও ‘গার্মেন্টস শ্রমিক জিন্দাবাদ’ সিনেমাগুলো। চলতি মাসের ১৩ তারিখ মুক্তি পাবে দুটি সিনেমা। এরমধ্যে রয়েছে অরুণ চৌধুরী পরিচালিত ‘মায়াবতী’। সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা, ইয়াশ রোহান প্রমুখ।অন্যদিকে একইদিনে মুক্তি পাবে ‘অবতার’। এই সিনেমার দিয়ে এই বছর আবারো বড়পর্দায় দেখা যাবে মাহীকে। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন মাহমুদুল হাসান শিকদার। তিনি বলেন, ‘বেশ ভালো পরিসরে সিনেমাটি নিয়ে আসছি আমরা। ঈদেই মুক্তির পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মুক্তি দেওয়া হয়নি।’ এছাড়াও ২০ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে ‘গার্মেন্টস শ্রমিক জিন্দাবাদ’। এই সিনেমায় জুটি হিসেবে দেখা যাবে মারুফ ও লাক্স তারকা অরিনকে। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন মুস্তাফিজুর রহমান বাবু। ২৭ ‘সেপ্টেম্বর’ মুক্তি পাবে কমল সরকার পরিচালিত ‘পাগলামি’। এখানে অভিনয় করেছেন বাপ্পী চৌধুরী ও কলকাতার শ্রাবণী। এক মাসের ভেতর ৪টি সিনেমা মুক্তি ঢালিউডের জন্য সুখবরই বটে। কিন্তু ঈদ পরবর্তী ব্যস্ততায় সিনেমা হলগুলোয় দর্শকদের ভিড় কতটুকু দেখা যাবে সেটি এখন অপেক্ষার বিষয়। তবে ব্যবসা যাই হোক, প্রতিমাসে একাধিক সিনেমা মুক্তিতে যেমন হলগুলো ব্যস্ত থাকবে তেমনি সিনেমার প্রতিযোগিতার জায়গাটা আরো বাড়বে।