সেই মোটরসাইকেলেই প্রাণ গেল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের

0
274

অনলাইন ডেস্কঃ

মোটরসাইকেল কিনে না দিলে আত্মহত্যা করার হুমকি দিয়েছিলেন সিটি ইউনির্ভাসিটির স্নাতক (সম্মান) ইংরেজি বিভাগের ছাত্র রিফাত আহমেদ (২২)।

প্রাণপ্রিয় ছেলেকে মৃত্যুর হাত থেকে ফেরাতে প্রায় মাস ছয় আগে ছয় লাখ টাকায় এপ্রিলিয়া ব্র্যান্ডের একটি মোটরসাইকেল কিনে দেন বাবা। সেই মোটরসাইকেলেই প্রাণ গেল রিফাতের।

গত শনিবার গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ২ নম্বর সিঅ্যান্ডবি বাজার এলাকায় একটি রিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ছিটকে পড়েন রিফাত। রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সোমবার দুপুরে মৃত্যু হয় তাঁর।

রিফাত আহমেদ শ্রীপুর পৌর এলাকার বেড়াইদেরচালা গ্রামের আলহাজ ধনাই বেপারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রুহুল আমিনের ছেলে। রিফাত ঢাকার আশুলিয়ায় অবস্থিত সিটি ইউনির্ভাসিটির স্নাতক (সম্মান) ইংরেজি বিভাগে পড়তেন।

রিফাতের বাবা রুহুল আমিন বলেন, ছেলের আবদার পূরণ করতে প্রায় ছয় মাস আগে এপ্রিলিয়া ব্র্যান্ডের একটি মোটরসাইকেল প্রায় ছয় লাখ টাকা খরচ করে কিনে দিয়েছিলাম। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটিতে সে যখনই বাড়ি আসত তখনই প্রিয় মোটরসাইকেল নিয়ে সারা দিন কাটত তার। গত শনিবার সকালে বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করতে মোটরসাইকেলে করে বাড়ি থেকে মাওনা চৌরাস্তায় যাচ্ছিল রিফাত। পথে ২ নম্বর সিঅ্যান্ডবি এলাকায় একটি রিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ছিটকে পড়ে সে। এলাকাবাসী গুরুতর আহত অবস্থায় ওকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার দুপুরে মারা যায় রিফাত।

রুহুল আমিন আক্ষেপ করে বলেন, ছেলের জীবন রক্ষার্থে আত্মহত্যার পথ থেকে ফেরাতে তিনি মোটরসাইকেল কিনে দিয়েছিলেন। আর সেই মোটরসাইকেলই কাল হলো সন্তানের।

ছেলের এমন মৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না রিফাতের বাবা।