সুন্দরবন নৌ-পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু ছোট্ট বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড নিহত

0
623
Exif_JPEG_420

#জিম্মি ৬ জেলে, অস্ত্র ও মালামাল উদ্ধার : আস্তানা ধ্বংস

শেখ মোহাম্মদ আলী, শরণখোলা, (বাগেরহাট) প্রতিনিধি:
বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন নৌ-পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ফরিদ হোসেন (৩৫) নামের এক বনদস্যু নিহত হয়েছে। সে সুন্দরবনের বনদস্যু ছোট্ট বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড বলে জানা গেছে। সোমবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশনের শ্যালা নদী সংলগ্ন কোতিয়ার খালে এ বন্দুকযুদ্ধোর ঘটনা ঘটে। দস্যুদের কাছে জিম্মি থাকা ৬ জেলেসহ দুটি আগ্নেয়াস্ত্র, ৬টি মোবাইল ফোন, একটি ডিঙ্গি নৌকা ও বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়। এসময় দস্যুদের একটি আস্তানা গুড়িয়ে দোওয়া হয়েছে।
উদ্ধার হওয়া জেলেরা হলেন, শরণখোলা উপজেলার দক্ষিণ বাধাল গ্রামের ইসমাইল ফকিরের ছেলে শাহ্ আবুল ফকির (২৮), উত্তর রাজাপুর গ্রামোর ইসমাইল খানের ছেলে সুমন খান (২০), একই গ্রামের মোফাজ্জেল আকনের ছেলে সুমন আকন (২৮), রতিয়া রাজাপুর গ্রামের রুহুল পোহলানের ছেলো ইসরাফিল পোহলান (২৩), মোংলা উপজেলার খাসেরডাঙ্গা গ্রামের নিরোধ হালদারের ছেলে প্রতুল হালদার (২৮) এবং জয়মনি গ্রামের ছত্তার হাওলাদারের ছেলে হাফিজ হাওলাদার (২৫)।
অভিযানের নেতৃত্বে থাকা শরণখোলা উপজেলার ধানসাগর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএসআই আকবর আলী জানান, অপহৃত জেলেদের উদ্ধারে সোমবার রাতে নৌ-পুলিশের পাঁচ সদস্য নিয়ে সুন্দরবনে অভিযান চালানো হয়। রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে শ্যালা নদীর কাতিয়ার খালে পৌঁছালে বনের ভেতর থেকে জেলেদের চিৎকার ভেসে আসে। এসময় সামনের দিকে অগ্রসর হলে পুলিশকে লক্ষ্য করে দস্যুরা গুলি ছুঁড়তে থাকে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় আধা ঘন্টা গোলাগুলির পর টিকতে না পেরে দস্যুরা বনের গহীনে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল তল্লাশি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ ওই দস্যুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এসময় দস্যুদের আস্তানা থেকে জিম্মি ৬ জেলে, একটি টুটুবার রাইফেল, একটি এয়ারগান, ৬টি মোবাইল ফোনসেট, একটি ডিঙ্গি নৌকাসহ বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়। নিহত দস্যু ফরিদের বাড়ি মোংলা উপজেলার চিলা ইউনিয়নের বদ্দমারী গ্রামে।
শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কবিরুল ইসলাম জানান, নিহত দস্যুর লাশ ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। উদ্ধার হওয়া জেলেদেরকে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত রবিবার ও সোমবার পূর্ব সুদরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশনের বিভিন্ন এলাকা থেকে মুক্তিপণের দাবিতে ৭ জেলেকে অপহরণ করে বনদস্যু ছোট্ট বাহিনী।