সুন্দরবন থেকে নদী সাতরিয়ে মোংলার লোকালয়ে চলে আসা হরিণ জবাই করে ভাগ বাটোয়ারার সময় মাংস, চামড়া ও মাথাসহ যুবক আটক

0
577

এ,এইচ শাহিন, মোংলা: মোংলার পশুর নদী পার হয়ে সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে আসা হরিণ জবাই করে ভাগ বাটোয়ারার সময় হাতেনাতে এক যুবককে আটক করেছে বনবিভাগ ও পুলিশের যৌথ বাহিনী। আটককৃতের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা দায়েরের পর বাগেরহাট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। পূর্ব সুন্দরবনের চাদপাই রেঞ্জ কর্মকর্তা মো: শাহীন কবির জানান, বৃহস্পতিবার ভোরে পশুর নদীর পশ্চিম পাড়ের সুন্দরবনের জোংড়া ও করমজলের মাঝামাঝি এলাকা থেকে নদী সাতরিয়ে আসা একটি হরিণ জয়মনিরঘোল সংলগ্ন কাটাখালী গ্রামের নাপিতবাড়ীতে ঢুকে পড়ে। এরপর সকাল ৭টার দিকে স্থানীয় কয়েক যুবক হরিণটিকে ধরে জবাই করে নাপিতবাড়ীর পিছনে ঝোপঝাড়ের মধ্যে বসে মাংস ভাগ বাটোয়ারা করিছল।

এ সময় খবর পেয়ে বনবিভাগরে চাদপাই ষ্টেশন অফিসার কামরুল হাসান সঙ্গে বোটম্যান মিজানুর রহমান, চাদপাই নৌ থানার পুলিশ সদস্য অনুজ ও আনোয়ারুলকে নিয়ে ওই এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানকারীরা ঘটনাস্থল থেকে ১৬ কেজি হরিণের মাংস, একটি চামড়া ও মাথার অংশ বিশেষ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থল হতে হাতেনাতে আটক করা হয় পলাশ সরদার (৩৫) নামের এক যুবকে। পলাশ নাপিতবাড়ী এলাকার নবীন সরদারের ছেলে।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে আটক পলাশের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা (মামলা নং ৫০/সিপি) দায়ের করার পর দুপুরে বাগেরহাট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। চাদপাই ষ্টেশন অফিসার কামরুল হাসান বলেন, অভিযানকারীদের উপস্থিতি টের পেয়ে এ অপরাধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িত অপর ৩/৪ যুবক ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়।