সুন্দরবনে মুক্তিপণের দাবীতে ২০ জেলে অপহরণ

0
770

শেখ মোহাম্মদ আলী, শরণখোলা প্রতিনিধি : পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা ও চাঁদপাই রেঞ্জে মুক্তি পনের দাবীতে প্রায় ২০ জেলেকে অপহরণ করেছে দু-দল বনদস্যু বাহিনী। এ ঘটনায় বনসংলগ্ন এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ী ও জেলেদের মধ্যপ আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।
বন বিভাগ ও জেলেদের মহাজন সূত্র জানায়, শুক্রবার ভোর রাতে পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের সাগর সংলগ্ন ছোপড়াখালী এলাকায় অবস্থানরত জেলেদের বহর বনদস্যু সুমন বাহিনী পরিচয়ে স্বশস্ত্র দস্যুরা জেলেদের উপর হামলা করে। এ সময় উপজেলার উত্তর রাজাপুর গ্রামের বাসিন্দা জেলে সরেয়ার আকন (৩০), ছগির খান (৩৪), ও মানিক হাওলাদার (৩২) সহ ১০/১২ জন জেলেকে অপহরণ করে। অপরদিকে বৃহস্পতিবার চাঁদপাই রপঞ্জের কলামূলা এলাকায় ছোট্ট বাহিনীর ৭-৮ সদস্য জেলেদের উপর আক্রমন কর। ওই সময় বন সংলগ্ন এলাকার ৮/১০ জেলেকে অস্ত্রের মুখ জিম্মি করে নিয়ে যায় দস্যুরা। দস্যুদের হাতে জিম্মি হওয়া অন্যান্য জেলেদের বাড়ি বরগুনা ও পাথরঘাটা সহ বনসংলগ্ন উপকুলীয় এলাকার বিভিন্ন গ্রাম বলে সূত্রে জানা যায়। বনদস্যুদের হাতে জিম্মি জেলেদের মুক্তিপণ বাবদ জন প্রতি ৫০ হাজার টাকা করে দাবী করছে দস্যুরা।
এ বিষয় শরণখোলা রেঞ্জের কটকা অভয়ারন্য ষ্টেশনের ইনচার্জ ফরেষ্টার মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ বলেন, জেলে অপহরনের বিষয়টি তিনি শুনেছেন এবং তাৎক্ষনিক ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেছেন। তবে জেলেদের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব কোষ্ট গার্ডের বন বিভাগের নয়। তার পরও মানবিক কারন তিনি ওই দিন অভিযান চালিয়েছেন।
কেষ্টগার্ড পশ্চিম জোন মোংলা অপারেশন কর্মকর্তা লেঃ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জানান, জেলে অপহরনের বিষয়টি তাদের জানা নেই, তবে খোঁজ খবর নিয়ে দেখবেন। এছাড়া জেলেদের নিরাপত্তার জন্য তাদপর টহল ব্যবস্থা সর্বদা জোরদার রয়েছে।