সুন্দরবনে বন্দুকযুদ্ধে আব্বাস বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ডসহ নিহত ২, সাতটি অস্ত্র উদ্ধার

0
544

শরণখোলা(বাগেরহাট) সংবাদদাতা:
শরণখোলা উপজেলাধীন পূর্ব সুন্দরবনের কাতলার খালে র‌্যাব-৮ সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুর্ধর্ষ বনদস্যু আব্বাস বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ডসহ ২ বনদস্যু নিহত হয়েছে। নিহতরা হলো বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড ইউসুফ ফকির এবং তার সহযোগী রুহুল আমিন। এ সময় র‌্যাব ঘটনাস্থল থেকে বনদস্যুদের ব্যবহৃত ৭টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১২৪ রাউন্ড গোলাবারুসহ বনদস্যুদের ব্যবহৃত মালামাল উদ্ধার ও বনদস্যুদের একটি আস্তানা গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। বুধবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে সুপতি স্টেশন আওতাধীন কাতলার খাল এলাকায় ঘন্টাব্যাপী এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত বনদস্যুদের বাড়ি বাগেরহাট জেলার মোংলা ও রামপাল উপজেলায় বলে র‌্যাব জানিয়েছে।
র‌্যাব -৮ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার হাসান ইমন আল রাজীব জানান, সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জে র‌্যাব সদস্যরা নিয়মিত টহলকালে বুধবার সকালে শরণখোলা রেঞ্জের সুপতি স্টেশন আওতাধীন কাতলার খাল এলাকায় টহল দিতে বের হন। এ সময়ে সুন্দরবনের ভিতর থেকে ধোয়া বের হতে দেখে সন্দেহ হলে র‌্যাব সদস্যরা ওই এলাকায় অভিযান শুরু করেন। অভিযানের এক পর্যায়ে সুন্দরবনের ভিতর থেকে র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে বনদস্যুরা গুলি ছুঁড়তে শুরু করে। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। ঘন্টাব্যাপী এ বন্দুকযুদ্ধের এক পর্যায়ে বনদস্যুরা পিছু হটে সুন্দরবনের গহীনে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে দুই বনদস্যুর গুলিবিদ্ধ লাশ, ৫টি একনলা বন্দুক, ১টি দুই নলা বন্দুক, ১টি কাটা রাইফেল, ১২৪ রাউন্ড গুলি, ৩টি রামদা ও ২টি ধারালো ছুড়ি ও অন্যান্য মালামাল উদ্ধার করা হয়। এসময় বনের অভ্যন্তরে বনদস্যুদের একটি আস্তানা গুড়িয়ে দেয় র‌্যাব সদস্যরা।
র‌্যাব ৮ আরো জানায়, চলতি নভেম্বর মাসের প্রথম থেকে দল ছুট কতিপয় বনদস্যু ছোট দল গঠন করে বিভিন্ন বাহিনী নাম দিয়ে সুন্দরবন ও সাগরের ডিমেরচর, পক্ষি দিয়ারচর, সুকতারা, শেলারচর, কটকা, কাতলার খাল, কচিখালীসহ বিভিন্ন এলাকায় অন্ততঃ ৩০ জেলেকে মুক্তিপনের দাবীতে অপহরনের ঘটনা ঘটিয়ে তাদের শক্তিমত্তার জানান দেয়। সম্প্রতি ৭/৮ জন নিয়ে আব্বাস বাহিনী গঠন করে তারা শরণখোলা ও সাতক্ষীরা রেঞ্জে দস্যুতাবৃত্তি শুরু করে।
শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কবিরুল ইসলাম জানান, নিহত দুই বনদস্যুর লাশ, অস্ত্র ও গোলাবারুদ দুপুর দেড়টার দিকে শরণখোলা থানায় হস্তান্তর করেছে র‌্যাব। এঘটনায় র‌্যাব-৮ এর ডিএডি হাবিব বাদি হয়ে সরকারি কাজে বাঁধা ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছেন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ##