সুন্দরবনের প্রতি আন্তরিক হওয়ার আহবান জানালেন : সিটি মেয়র

0
395

তথ্যবিবরণী: খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক সুন্দরবনের প্রতি আন্তরিক হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, সকলে সুন্দরবনকে ভালবাসেন এবং ভাবেন কিন্তু সুন্দরবনকে রক্ষায় অনেকে কাজ করতে চান না। সুন্দরবনের সম্পদ আমাদের সমৃদ্ধি বয়ে আনতে পারে। সবার উপরে পরিবেশ সুরক্ষায় সুন্দরবনের ভূমিকা অপরিসীম।

সিটি মেয়র আজ নগরীর একটি হোটেলে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এ্যাওসেড এবং কোস্ট আয়োজিত ‘জলবায়ু পরিবর্তনে উপকূলীয় অঞ্চলের বিপদাপন্ন মৎস্যজীবী সম্প্রদায়ের জীবনমান উন্নয়নে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা’ শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

সেমিনারে জানানো হয়, গত ৩০ বছরে বাংলাদেশে মাছের উৎপাদন পাঁচগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। ইলিশকে বাংলাদেশের ভৌগলিক নির্দেশক (জিআই) হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। সমুদ্র থেকে দশমিক ৬৩ মিলিয়ন টন মাছ প্রতি বছর আহরিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে ইলিশ আহরণে সম্পৃক্ত মৎস্যজীবীসহ দেশের ১৪ লাখ ২০ হাজার মৎস্যজীবীকে পরিচয়পত্র দেওয়া হয়েছে। সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় জাটকা আহরণ নিষিদ্ধকালীন দুই লাখ ৩৮ হাজার ৬৭৩টি পরিবার এবং ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধকালীন তিন লাখ ৫৬ হাজার ৭২৩টি পরিবারকে মাসিক ৪০ কেজি ভিজিএফ খাদ্য সহায়তা হিসেবে দেওয়া হচ্ছে।

খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি ফারুক আহমেদ এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন সুন্দরবন বিভাগের উপ বনসংরক্ষক কবির হোসেন পাটোয়ারি, সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক খান মোতাহার হোসেন এবং মৎস্য দপ্তরের শাজাহান আলী। স্বাগত জানান কোস্ট এর নির্বাহী পরিচালক ডি এম নাজমুল আলম। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এ্যাওসেড এর নির্বাহী পরিচালক শামীম আরফিন।

সেমিনারে সরকারি-বেসরকারি দপ্তর, গণমাধ্যম ও মৎস্য আহরণ প্রতিনিধিরা অংশ নেন।