সাড়ে ৩৯ টাকার ইফতার খেলেন খালেদা জিয়া

0
328

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে তার গৃহপরিচারিকা ফাতেমা বেগমের সঙ্গে প্রথম রোজার ইফতার করেছেন।
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে তার গৃহপরিচারিকা ফাতেমা বেগমের সঙ্গে প্রথম রোজার ইফতার করেছেন।

১৮ মে, শুক্রবার নাজিমুদ্দিন রোডের ওই কারাগারে প্রচলিত ইফতারি সামগ্রী গ্রহণ করেন খালেদা জিয়া।

কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, সরকারিভাবে সাধারণ একজন বন্দীর জন্য ইফতারে ২৭ টাকা ২০ পয়সা এবং প্রথম শ্রেণির একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দীর জন্য ৩৯ টাকা ৫০ পয়সা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। তাই ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দী হিসেবে সরকারিভাবে খালেদা জিয়ার জন্যও একই টাকা ইফতারের বরাদ্দ রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কারা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা ইউএনবি জানায়, খালেদা জিয়ার ইফতারের মেন্যুতে ছোলা, পিঁয়াজু, মুড়ি, খেজুর, জুস এবং ফলমূল ছিল।

চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত সহকারী এবিএম আব্দুস সাত্তার বলেন, প্রথম রোজার ইফতারি নিয়ে খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা তার সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন। অবশ্য কারা কর্তৃপক্ষ অনুমতি দেয়নি।

পাশাপাশি জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ তার পার্টির সহকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়াকে ইফতারি দিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষ সেগুলো গ্রহণ করেনি।

প্রত্যেক বছরের প্রথম রোজায় খালেদা জিয়া এতিম শিক্ষার্থী এবং আলেম-ওলামাদের সঙ্গে ইফতার করতে অভ্যস্ত। এবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ড হওয়ায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে রয়েছেন বিএনপিপ্রধান। আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে তার গৃহপরিচারিকাও কারাগারে রয়েছেন।

দলের চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতিতে রাজধানীর লেডিস ক্লাবে এতিম শিক্ষার্থী এবং আলেম-ওলামাদের জন্য ইফতারের আয়োজন করে বিএনপি। অবশ্য খালেদা জিয়া না থাকায় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির চেয়ারটি ফাঁকা ছিল।

অনুষ্ঠানে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, তাদের চেয়ারপারসন কারাগারে থাকায় এ বছর দুঃখভরা হৃদয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রতি বছরের প্রথম রোজায় তিনি (খালেদা) এতিমদের সঙ্গে ইফতার করতে অভ্যস্ত। কিন্তু এ বছর তিনি কারাগারে একাকী ইফতার করছেন। এটা আমাদের সবার জন্য বেদনার। অতি দ্রুত যেন আমরা তাকে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে আনতে পারি, এজন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করি।’