সাগরে কয়লা বোঝাই ৪ দিন পর মোংলা বন্দরের নোঙ্গর

0
530

মোংলা প্রতিনিধি: বঙ্গোপসাগরে ইঞ্জিন বিকল হয়ে ৪দিন পর মোংলা বন্দরে বহিঃনঙ্গর থেকে বন্দরের হারবাড়ীয়া এলাকায় ৭ নং বয়ায় ভিরছে একটি কয়লাবাহী বিদেশি জাহাজ। বিদেশী এ জাহাজটির বুধবার (২৪ অক্টোবর) মোংলা বন্দরে প্রবেশ করার কথা থাকলেও ইঞ্জিন খারাপ হওয়ায় সাগরের বহিঃনঙ্গর মোহনা থেকে আসতে পারেনী। বিদেশী বানিজ্যিক মারশিল পতাকাবাহী ‘এম ভি পারনোন’ নামের জাহাজটির বাংলাদেশের স্থানীয় প্রতিনিধি প্রতিষ্ঠান (শিপিং এজেন্ট) মেসার্স কসমস শিপিং লাইন্স’র স্থানীয় প্রতিনিধি সিরাজুল ইসলাম এই তথ্য জানিয়েছে।

মোঃ সিরাজুল ইসলাম বলেন, বানিজ্যিকভাবে কয়লা বোঝাইকরে বিদেশ থেকে আসা এম ভি পারনোন জাহাজটি মালেয়শিয়ার একটি বন্দর থেকে ৫৫ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে গত ৩ অক্টোবর বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। সে বন্দরে ২৮ হাজার ৫শ মেট্রিক টন কয়লা খালাসের পর বাকি ২৬ হাজার ৫শ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে গত ২৪ অক্টোবর বুধবার সকালে সাগর পাড়ীদিয়ে মোংলা সমুদ্র বন্দরের উদ্দ্যেশ্যে আসার সময় চট্রগ্রাম ও মোংলা বন্দরের মাঝপথে ওই জাহাজের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। পরে জাহাজে থাকা নাবিকরা দ্রুত জাহাজটি ওখানেই তাদের কাছে থাকা গ্রাফি (নোঙ্গর) ফেলে আটকে রাখে। সেখানেই গত ৪দিন ধরে জাহাজটি বন্দরের বহিঃর্নোঙরের বাইরে বঙ্গোপসাগরে ভাসতে থাকে। জাহাজের ইঞ্জিনটি সচল করতে গত ৩দিন ধরে প্রানপন চেষ্টা করে স্বফল হয় জাহাজের নিজস্ব (ইঞ্জিনিয়ার) প্রকৌশলীরা।

কয়লা বোঝাই ওই জাহাজটিতে ক্যাপ্টেনসহ ২২ জন বিদেশি নাবিক নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত রয়েছে বলেও জানিয়েছেন সিরাজুল ইসলাম। তিনি আরো জানান, জাহাজে থাকা কয়লা খালাস করতে গতকাল দুপুরে লঞ্চ যোগে শ্রমিক পাঠানো হয়েছে। এ শ্রমিকরা রাতের পালা থেকে দ্রুত কয়লা খালাস কাজ শুরু করার কথা রয়েছে। যা আগামী ৪ তেকে ৫দিনের মধ্যে জাহাজটি পুর্ন খালাস করতে সক্ষম হবে বলেও জানায় সে।

জাহাজটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট স্থানীয় ব্যবসায়ী মেসার্স মায়া এন্টারপ্রাইজের মালিক আহসান হাবিব হাসান জানান, বুধবারই রাতে ভিএসসেভের মাধ্যমে ইঞ্জিন বিকলের খবর দিয়ে মোংলা বন্দরের হারবার বিভাগকে জানানো হয়। জাহাজটি শনিবার দুপুরে পুনরায় ইঞ্জিন স্বচল করে মোংলা বন্দরের হারবাড়ীয়ার ৭ নং বয়া এলাকায় ভিড়ছে বলেও জানান তিনি। মোংলা বন্দরের হারবার বিভাগের কর্মকর্তা আব্দুল বারী জানান, গত ৪দিনধরে সাগরে ভাসমানের পর গতকাল দুপুরে মোংলা বন্দরের হারবাড়ীয়া এলাকায় জাহাজটি প্রবেশ করেছে এবং ৭নং বয়ায় নোঙ্গর করেছে। বিদেশী কয়লা বোঝাই এ জাহাজটি এখন ঝুকিমুক্ত এবং নাবিকরাও সুস্থ ও নিরাপদে আছে।