সাংসদ মিজানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের আ’লীগের নিন্দা ও প্রতিবাদ

0
441

বিজ্ঞপ্তি: মহানগর আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি’র বিরুদ্ধে দুদকে মিথ্যা তথ্য প্রদান, ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে অপপ্রচার করে তাঁর এবং আ’লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করে সংবাদ প্রকাশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে দলের নগর ও জেলা কমিটি।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশে নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করেছে। সিটি নির্বাচনের পরপরই শুরু হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ঠিক এমনই একটি সময়ে কতিপয় ষড়যন্ত্রকারী স্বাধীনতার স্বপক্ষের সংগঠন ১৪ দল ও এই সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। যা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের উপর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান শুধুমাত্র একজন ব্যক্তি নয়, তিনি একজন সংসদ সদস্য, ১৪ দলের মত একটি মাল্টি অর্গানাইজেশনের সমন্বয়ক এবং নগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক। তাঁর পিতা আ’লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য ছিলেন। তিনি একজন রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। তাঁর রয়েছে বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ার। তাঁর জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে কতিপয় ব্যক্তি নানান ষড়যন্ত্র, অপপ্রচার চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী, জমি দখলকারী এমন কি চোরাচালানী বানাতেও বাদ দেয়নি। ওই সকল ষড়যন্ত্রকারীদের মিথ্যা অপপ্রচারে খুলনার মানুষ যখন গুরুত্ব দেয়নি ; তখন ষড়যন্ত্রকারীরা দুদকে নামে বেনামে সাংসদ মিজানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। একই সাথে ষড়যন্ত্রকারীরা ভুল বুঝিয়ে সাংবাদিকদের অসত্য তথ্য সরবরাহ করে সংবাদ করাচ্ছে। এই ষড়যন্ত্র মিজানের বিরুদ্ধে করলেও সেটির প্রভাব ১৪ দল ও সরকারের উপর বর্তায়। সে কারনেই আমরা বলতে চাই-একজন সম্ভ্রান্ত মানুষের সম্মান বিনষ্ট করে কারোরই কোন লাভ হবে না। আওয়ামী লীগ সাংগঠনিকভাবে সকল ষড়যন্ত্রকে শক্তহাতে প্রতিহত করবো, ইনশাল্লাহ।

ষড়যন্ত্রকারীদের থেকে সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য দলীয় নেতা-কর্মীসহ খুলনাবাসির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় আ’লীগ নেত্রী ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, মহানগর সভাপতি ও মেয়র প্রার্থী আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, জেলা সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, জেলা সাধারণ সম্পাদক এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা এমপি, কেন্দ্রীয় নেতা এস এম কামাল হোসেন।