সাংবাদিক মল্লিক সুধাংশু’র সাথে অশালীন আচরণকারী ইউএনও কে ৭ দিনের মধ্যে অপসারণ করতে হবে, অন্যথায় সিরিজ আন্দোলন

0
599

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
খুলনা প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সভায় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেছেন, ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও বিআরবি আজগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি মল্লিক সুধাংশু’র সাথে অশালীন আচরণকারী তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিটন আলীকে ৭ দিনের মধ্যে অপসারণ করতে হবে। ঔদ্ধত্তপুর্ন ব্যবহারের দায়ে তাকে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় খুলনার সর্বস্তরের সাংবাদিকরা ঐক্যবদ্ধ ধারাবাহিক আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।

রবিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় খুলনা প্রেসক্লাবের হুমায়ুন কবীর বালু মিলনায়তনে খুলনা প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের যৌথ সভায় এই দাবি রাখেন নেতৃবৃন্দ। এদিকে আন্দোলনের অংশ হিসেবে তেরখাদার ইউএনও’র অপসারণের দাবিতে খুলনা বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আজ দুপুরে স্মারকলিপি প্রদান করা হবে।

বিক্ষুবদ্ধ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, কোন বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি, বা সাংবাদিক অথবা সাধারণ মানুষের সাথেও ইউএনও মো. লিটন আলীর অসভ্য ব্যবহার করা উচিত নয়। আর মল্লিক সুধাংশু’র সাথে এ ধরণের আচরণ করে লিটন আলী এটা প্রমান করেছেন যে তিনি উদ্দেশ্যমুলক ভাবেই এটা করেছেন। শুধু তাই নয়, ইউএনও লিটন আলীর বক্তব্য মানহানিকর, উদ্দেশ্যমুলক, আদেশ করা এবং হুমকি প্রদানেরও সামিল। সাংবাদিক হিসেবে আমরা কোনভাবেই মেনে নিতে পারিনা। লিটন আলীর এমন অনৈতিক আচরণের প্রতিবাদে ধারাবাহিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে স্মারক লিপি পেশ, বিক্ষোভ সমাবেশ, বিক্ষোভ মিছিল এবং মানববন্ধনসহ কঠোর আন্দোলন করা হবে।

প্রেসক্লাবের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত যৌথ সভায় সভাপতিত্ব করেন খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি ফারুক আহমেদ। প্রতিনিধিত্বকারী বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তৃতা করেন খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ের সভাপতি এস এম জাহিদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, খুলনা টিভি রিপোর্টাস এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রকিব উদ্দিন পান্নু, খুলনা সংবাদপত্র পরিষদের পক্ষে মিজানুর রহমান মিলটন, খুলনা মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতা হাসান আহমেদ মোল্যা ও রাশিদুল ইসলাম, খুলনা টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নিয়ামুল হোসেন কচি, ফটো জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বাপ্পী খান, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতা আসাদুজ্জামান রিয়াজ।
সভায় আরো বক্তৃব্য প্রদান করেন প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর হান্নান, কোষাধ্যক্ষ হেদায়েৎ হোসেন মোল্লা , কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য এস এম সাহিদ হোসেন, সোহরাব হোসেন এবং সামছুজ্জামান শাহীন।

সভায় আরও বক্তৃতা করেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু, এ কে হিরু ও শেখ আবু হাসান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন ও সুবীর কুমার রায়, সিনিয়র সদস্য শেখ দিদারুল আলম, মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, ক্লাব সদস্য মাহাবুবুর রহমান মুন্না, ফরিদ রানা।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ক্লাব সদস্য শেখ ইলিয়াস আহমেদ, শেখ তৌহিদুল ইসলাম, শেখ সামছুদ্দিন দোহা, বিমল সাহা, মাছুম বিল্লাহ, ইউজার সদস্য সোহাগ দেওয়ান, আল মাহমুদ প্রিন্স, কাজী ফজলে রাব্বী শান্ত, নুর ইসলাম রকি, কেইউজের নির্বাহী সদস্য সুমন আহমেদ প্রমুখ।

এদিকে সভায় তৌহিদুল ইসলাম তুহিনের প্রাণনেশর হুমকির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ এবং কেইউজে’র সদস্য আল মাহামুদ প্রিন্সকে প্রহৃত করার বিষয়ে নিন্দা প্রকাশ করা হয়।