সম্মেলন ৬ নভেম্বর সফলে সভা স্বাচিপ খুলনা একাংশের : বাহার পন্থির সম্মেলন আজ

0
533

খুলনা টাইম প্রতিবেদক :
স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) খুলনার জেলা শাখার বর্তমান কমিটিকে অসাংগঠনিক কার্যকলাপ ও সংগঠনের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির কারণে কমিটি বিলপুপ্ত করে আগামী ৬ নভেম্বর সম্মেলনের নির্দেশনা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় কমিটি। অপরদিকে কমিটির নির্দেশ অমান্য করে সাবেক স্বাচিপের জেলা সভাপতি ডাঃ বাহারুল আলম আজ শুক্রবার তার অনুসারীদের নিয়ে সম্মেলনের ডাক দিয়েছেন। এই নিয়েই স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) খুলনার দুই গ্রুপ অবস্থান নিয়েছেন। তবে জেলার সিংহভাগ স্বাচিপ নেতা ও কাউন্সিলররা কেন্দ্রের কমিটির নির্দেশনাকে যথাযথ পালনের জন্য প্রস্তুতি রয়েছেন বলে একটি সূত্র জানায়।
এ ব্যাপারে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) খুলনা জেলা সাবেক সভাপতি ডাঃ বাহারুল আলম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদককে বলেন, কেন্দ্রের ৬ নভেম্বর সম্মেলন ও কমিটিকে বিলুপ্তি করার বিষয়ে তিনি প্রত্যাখান করেছেন। তিনি বলেন, খুলনা জেলা শাখার স্বাচিপের কমিটি বিলুপ্তি করার এখতিয়ার সভাপতি ও মহাসচিবের নেই দাবি করে বলেন, আছে শুধু কেন্দ্রীয় কার্যাকরি পরিষদের। সেটি আবার সাধারণ সভায় অনুমোদনের পর কার্যাকরী হবে, এর আগে না, তাও বিলুপ্তি করতে পারেনা স্থগিত করতে পারে। এ জন্য কেন্দ্রের বিলুপ্তি করার যে ঘোষনা দিছে তা অকার্য্যকর, অসাংবিধানিক এবং তাদের এখতিয়ার বহির্ভুত। আগামী ৬ নভেম¦ও সম্মেলনে তিনি উপস্থিত না থাকার বিষয় জানিয়ে বলেন, কারণ আয়োজনটি কার্যকরি পরিষদের করার কথা, ওনাদের অনুরোধে বা নির্দেশে। কিন্তু তারা কোন নির্দেশনাও দেননি এবং অুনরোধও করেননি।
অপরদিকে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদের দপ্তর সম্পাদক স্বাক্ষরিত জেলা কমিটির বিলুপ্তি ও সম্মেলনের নির্দেশনা বিষয় তিনি বলেন, খুলনা শাখা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে নির্দেশ দেবে এমন একটি সভার আয়োজন করার। সেটা তারা সরাসরি দিয়েছেন। তারা কোনভাবেই তাকে অবহিত বা কোন কিছুই জানায়নি বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, আজ শুক্রবার সকাল ১০টায় বিএমএ ভবনে তার নেতৃত্বে একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। পরবর্তীতে জেল হত্যা দিবসের আলোচনা করা হবে।
একটি সূত্র মতে, কেন্দ্রের থেকে কার্যকারী পরিষদের নেতৃবৃন্দ ডা: বাহারুল আলমের ব্যবহৃত একাধিক ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি। পরবর্তীতে এই নির্দেশনা তার ম্যাসেঞ্জারে মেইল করা হয়েছে। তার আজকের সম্মেলনে কারা কারা উপস্থিত থাকবেন সেটা এখন দেখার বিষয়।
এর আগে গত ১ নভেম্বর স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদদ (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় কার্যকরি পরিষদের সভাপতি ও মহাসচিবের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, স্বাচিপ খুলনা জেলা শাখার বর্তমান কমিটির অসাংগঠনিক কার্যকলাপ ও সংগঠনের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির কারণে খুলনা জেলা শাখা বিলুপ্তি করেন। পাশাপাশি আগামী ৬ নভেম্বর সোমবার খুলনা জেলা শাখার সম্মেলন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত করার জন্য ডাঃ কাজী হামিদ আজগরকে আহবায়ক, ডাঃ সামসুল আলম আহসান মাসুমকে যুগ্ম আহবায়ক এবং ডাঃ মেহেদাী নেওয়াজকে সদস্য সচিব করে আহবান কমিটি গঠন করা হয়।
এ ব্যাপারে স্বাচিপের কেন্দ্রের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ৬ নভেম্বর সম্মেলন উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব এবং বিএমএ খুলনার সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মেহেদাী নেওয়াজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদককে বলেন, কেন্দ্রের নির্দেশে সম্মেলন হবে। সম্মেলনটি সুষ্ঠুভাবে সফল করার জন্য কেন্দ্রে থেকে ৩ সদস্য কমিটি গঠন করে দিয়েছেন। সেই অনুযায়ী আগামী ৬ নভেম্বর স্বাচিপ খুলনা জেলা শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনে ব্যাপক সারা পড়েছে উল্লেখ করে বলেন, বর্তমানে খুলনা জেলা শাখায় স্বাচিপের ৪৬৮-৪৭০ জনের মতো মেম্বার রয়েছেন। এছাড়া স্বাচিপের সদস্য ও সকল চিকিৎসকদের শতভাগের উপরে কেন্দ্রের নির্দেশনার সম্মেলনের প্রতি সমর্থন রয়েছে। ভাল মন্দ পরের বিষয় কিন্তু আমরা কেন্দ্রের নির্দেশনার বাইরে যাবো না উল্লেখ করে বলেন, ৬ নভেম্বর সম্মেলন সকাল ১০টায় খুলনা মেডিকেল কলেজের ১নং গ্যালারীতে অনুষ্ঠিত হবে।
এ ব্যাপারে স্বাচিপের নেতা ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মেডিসিন বিভাগের সহকারি রেজিষ্ট্রার ডাঃ শৈলান্দ্র নাথ বিশ্বাস বৃহস্পতিবার রাতে এ প্রতিবেদককে বলেন, বঙ্গবন্ধু আদর্শের সংগঠন জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্তৃক দায়িত্ব প্রাপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশেই আগামী ৬ নভেম্বর স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সকল গঠনতন্ত্র মেনেই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। তিনি আরও বলেন, স্বাচিপের সিংহভাগ নেতাকর্মী আগামী ওই সম্মেলনে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিতিতে সম্মেলন সফল করার বিষয় চিকিৎসকরা সম্পুর্নরূপে প্রস্তুতি রয়েছেন এবং কেন্দ্রের নির্দেশ যথাযথভাবে পালন করার ঘোষনা দেন। ##