সন্ত্রাস-নাশকতা-জঙ্গিবাদ-মাদক ঠেকাতে আরও পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায়

0
355

তথ্যবিবরণী : সন্ত্রাস, নাশকতা, জঙ্গিবাদ ও মাদকের অপব্যবহার ঠেকাতে আরও পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আজ জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায়। খুলনার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মনিরুজ্জামান এর সভাপতিত্বে সকালে তাঁর সম্মেলনকক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় অংশগ্রহণকারী অনেকেই জানান, বারবার এই সভায় সন্ত্রাস, নাশকতা জঙ্গিবাদ ও মাদকের অপব্যবহার রোধে মসজিদের ইমামকে আরও সক্রিয় হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলেও অধিকাংশ মসজিদের ইমামরা খুদবায় বিষয়টি এড়িয়ে যান। ইমামরা যাতে আরও সক্রিয় হন এব্যাপারে ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
এছাড়া সভায় নগরীতে চলাচল মাহিন্দ্রতে পিছনের সিটে চারজন যাত্রী বহন বন্ধ করা, ফুটপাত থেকে হকারদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে পুনর্বাসন করা, সড়কে চলাচল নির্বিঘœসহ নিরাপদ রাখার ব্যাপারেও আলোচনা হয়। মাদক নিয়ন্ত্রণে অভিযান পরিচালনার পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে উদ্বুদ্ধকরণ সভা আয়োজনের বিষয়ে আলোচনা হয়।
সভায় আইনশৃঙ্খলা প্রতিবেদনে জানানো হয়, খুলনা জেলার নয়টি উপজেলায় গত জনু মাসে রাহাজানি ১টি, চুরি ৩টি, খুন ১টি, অস্ত্র আইন ৩টি, ধর্ষণ ৬টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ১০টি, মাদকদ্রব্য ১৮৪টি এবং অন্যান্য ৮৩টিসহ মোট ২৯১টি মামলা দায়ের হয়েছে। গত মে মাসে এ সংখ্যা ছিল ২৪৩টি।

মহানগরীর আটটি থানায় গত জুন মাসে রাহাজানি ১টি, চুরি ৮টি, খুন ৪টি, অস্ত্র আইনে ৩টি, দ্রæত বিচার ৪টি, ধর্ষণ ৪টি, অপহরণ ১টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ৮টি ও মাদকদ্রব্য ১৭৫টি এবং অন্যান্য আইনে ৩৯টি সহ মোট ২৪৭টি মামলা দায়ের হয়েছে। গত মে মাসে এ সংখ্যা ছিল ২৬৯টি।

আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ. সিভিল সার্জন ডাঃ এ এস এম আব্দুর রাজ্জাকসহ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, ইউএনও এবং সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্তকর্তা ও অন্যান্য সদস্যগণ অংশ নেন। একই সাথে সন্ত্রাস-নাশকতা ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ কমিটির সভা এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কমিটির সভাও অনুষ্ঠিত হয়।