‘সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমনে সরকার জিরো টলারেন্সে’

0
219

টাইমস ডেস্ক :
সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমনে সরকারের জিরো টলারেন্স অবস্থানের কথা পুনর্ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন- সমাজে উগ্রবাদ রুখে দিতে জনবান্ধব হয়ে কাজ করতে হবে পুলিশ বাহিনীকে। সোমবার সকালে রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইনে পুলিশ সপ্তাহ ২০১৮’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি। দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা- জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে কাজ করতে নির্দেশ দেন পুলিশ বাহিনীকে।
শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা, অপরাধ শনাক্ত ও প্রতিরোধসহ আইন প্রয়োগের মাধ্যমে জননিরাপত্তা বিধানে মাঠ পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করা প্রধান বেসামরিক বাহিনী বাংলাদেশ পুলিশ। ৭১ এ রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে এই বাহিনীর সদস্যরাই রাজারবাগ থেকে প্রথম স্বশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলে হানাদারদের আক্রমনের বিরুদ্ধে। পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে সোমবার ঐতিহাসিক সেই রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের প্যারেড গ্রাউন্ডে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিদর্শন করেন বাহিনীর কুচকাওয়াজ, গ্রহণ করেন রাষ্ট্রীয় সালাম।

এরপর, জঙ্গিবাদ দমনসহ অপরাধ নির্মূল করে সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় বিশেষ অবদানের জন্য বাহিনীর সর্বোচ্চ সংখ্যক ১৮২ জন সদস্যকে পরিয়ে দেন সম্মানসূচক বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল-বিপিএম এবং প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল পিপিএম।

পুলিশ সপ্তাহের উদ্বোধনী পর্বে বাহিনীর সদস্যদের প্রতি বক্তব্য রাখেন সরকার প্রধান শেখ হাসিনা। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স উল্লেখ করে তিনি বলেন, জনসম্পৃক্ত হয়ে কাজ করলে সমাজ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূলের কাজ সহজ হয়।

সন্ত্রাসবাদ দমনে পুলিশের সক্ষমতা বাড়াতে সরকার এন্টি টেরোরিজম ইউনিট গঠন করেছে জানিয়ে, শেখ হাসিনা পুলিশ সদস্যদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে কাজ করতে নির্দেশ দেন।

পরে, পুলিশ প্রধানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে রাজারবাগ পুলিশ লাইনের অভ্যন্তরে পুলিশ অডিটোরিয়ামের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।