সচেতন ও সোচ্চার জনগোষ্ঠীই গণতন্ত্রের রক্ষাকবচ: যশোরে ড. বদিউল আলম মজুমদার

0
355

নিজস্ব প্রতিবেদক:
নির্বাচনের মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা বদলের প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হলে দেশ ও জাতি বিপর্যয়ের দিকে যাবে। সচেতন সংগঠিত ও সোচ্চার জনগোষ্ঠীই গণতন্ত্রের রক্ষাকবচ। সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা বদল চায় সুজন। শনিবার সকালে যশোর জয়ত্রী সোসাইটি মিলনায়তনে সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের বিভাগীয় পরিকল্পনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার এ কথা বলেন।
সুজনের কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলিপ সরকারের পরিচালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন সুজন বিভাগীয় কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ জাফর ইমাম। অতিথি ছিলেন খুলনা মহানগর সুজনের সভাপতি ভাষাসৈনিক আলহাজ্ব লোকমান হাকিম, যশোর জেলা সভাপতি এড. সালেহা বেগম, সাতক্ষীরা জেলার সভাপতি অধ্যাপক সুভাস চন্দ্র সরকার, নড়াইল জেলার সভাপতি এস এম আব্দুল মতিন, ঝিনাইদহ জেলার সভাপতি অধ্যাপক আমিনুর রহমান টুকু, চুয়াডাঙ্গা জেলার সাধারণ সম্পাদক শহিদুল হক, চুয়াডাঙ্গা জেলা সম্পাদক মাহবুল ইসলাম সেলিম, কুস্টিয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবাল, মাগুরা জেলার সহ-সভাপতি সাহিদুল হক, যশোর জেলা সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ মোঃ আতিকুর রহমান। এ সময় বিগত এক বছরে সুজনের বিভিন্ন কার্যক্রম ও অর্জন তুলে ধরেন সুজনের খুলনা বিভাগীয় সমন্বয়কারী মাসুদুর রহমান রঞ্জু। সভা শুরুর পূর্বে নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত সুজন পরিবারের সদস্য সানজিদা হক বিপাশাসহ বিগত দিনে সুজন পরিবারের যেসব সদস্য মারা গেছেন তাদের স্মরণে শোক প্রস্তাব আনেন যশোর জেলা সমন্বয়কারী খোরশেদ আলম।
সভায় প্রধান অতিথি বলেন, বিগত ২০১৪ সালে বিতর্কিত নির্বাচন হয়েছে। যার মাসুল এখন দিতে হচ্ছে। তারই ফলশ্রæতিতে ইতোমধ্যে সৈরাচারের তকমা পেয়েছি। এ অবস্থা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। দেশে দুর্নীতি সমাজের রন্ধে রন্ধে ছড়িয়ে পড়েছে। বিচার ব্যবস্থা ধ্বংসের দ্বার প্রান্তে। রোহিঙ্গা সংকট ক্রমে প্রকট হচ্ছে। আবারো যদি বির্ককিত নির্বাচন হয়। তাহলে দেশের অবস্থা ভয়াবহ হবে। নির্বাচনে জনগণের মতামত প্রতিফলিত হওয়া দরকার। নিয়মতান্ত্রিকভাবে ক্ষমতা বদল না হয় তবে তার জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে না। দেশ বড়ই ক্লান্তি লগ্নে রয়েছে। এখন দেশে একভীতিকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।প্রতিবাদ না করলে এক সময় দেশে বাসযোগ্য পরিবেশ থাকবে না। সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে এলে এ পরিবেশ থেকে পরিত্রণ পাওয়া সম্ভব। এক্ষেত্রে সমাজে সচেতন জনগোষ্ঠীকে এক হতে হবে। নির্বাচন কমিশনে সঠিক লোক নিয়োগ না দেয়ায় সুষ্ঠু নির্বাচনে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। তারা তাদের ক্ষমতা সম্পর্কে সম্পূর্ণভাবে অবগত নয়। এ নির্বাচন কমিশনকে বারবার বলা সত্বেও সঠিক নির্বাচন সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে তেমন অগ্রগতি নেই। মানুষের সম্মতি গনতন্ত্র সমাজে বাস্তবায়ন্ দরকার। ভোটারদের সামনে বিকল্প থাকতে হবে। নির্বাচনে যদি প্রতিযোগিতা না থাকে তা কোন নির্বাচন হতে পারে না। গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা কার্যকরী করতে সকলকে সোচ্চার হতে হবে। সুজন কোন এনজিও নয়। এটা সচেতন নাগরিকদের সংগঠন। সুজনের মাধ্যমে মানুষকে জাগিয়ে তুলতে হবে। সোচ্চার করে তুলতে হবে। ভালো মানুষদের নিস্ক্রয়তার কারণে মন্দ লোকেরা কর্তৃত্ব¡ প্রতিষ্ঠা করে।তাই ভালো মানুষদের এখনই সক্রিয় হতে হবে এবং সংগঠিতভাবে কাজ করতে হবে। তা না হলে দেশটি এক সময় বাসযোগ্য থাকবে না। ভালো মানুষদের সংগঠিত শক্তির বিজয় নিশ্চিত। কারণ মন্দ মানুষদের কোন নৈতিক শক্তি থাকে না। সৎ মানুষের সংগঠিত শক্তি দেখলে তারা পালিয়ে যেতে বাধ্য। সভায় নেতৃবৃন্দ তাদের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আগামী একবছরের কার্মপরিকল্পনা গ্রহন ও উপস্থাপন করেন। সভায় খুলনা বিভাগের সকল জেলা ও উপজেলা কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকসহ দেড় শতাধিক নেতৃীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। কর্মপরিকল্পনা সভায় দেশের বিরাজমান পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও করণীয় নিয়ে খুলনা বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে আগত সুজন নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন মতমত প্রদান করেন।