সকালেই ‘কালো’ কালবৈশাখী

0
377
কালবৈশাখী-rtvonline

অনলাইন ডেস্কঃ
সকাল ১১টা। চারিদিক অন্ধকার। আকাশে মেঘের গুড় গুড় আওয়াজ আর বিদ্যুৎ চমকানির আলোর ছটা কখনও কখনও অন্ধকারকে কাটানোর চেষ্টা করছে। প্রায় ১৫ মিনিটের এমন পরিস্থিতি ছিল পুরো রাজধানী জুড়ে। ঘরের দরজা-জানালা খুলে বাইরে তাকালে বোঝার কোনো উপায় নেই এটা দিন না রাত।
সকালে ঝড়বৃষ্টিতে বিপাকে পড়েন কর্মজীবী, শ্রমিক ও সেবা সংস্থার কর্মকর্তারা। এসময় সবধরনের যানবাহনকে দেখা যায় হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে।

গেলো কয়েকদিন আগে ঢাকার আকাশে এমন অন্ধকার দেখা গেছে। সেসময় বিরূপ আবহাওয়ার কারণে রাজধানীর কারওয়ানবাজার, ফার্মগেট, শাহবাগ, পল্টন মোড়, গুলিস্তান, মিরপুর-১০, মহাখালী, মালিবাগ-মৌচাক, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, নিউমার্কেট এলাকায় যানজট দেখা যায়। বিপাকে পড়েন শ্রমিক ও সেবা সংস্থায় কর্মরত লোকেরা।

পুরাণ ঢাকা, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, বারিধারা, বাড্ডাসহ কয়েকটি এলাকায় ঝড়ে রাস্তার পাশের সাইনবোর্ড, টং দোকান উল্টে যায়। এছাড়া ছোট-বড় কিছু গাছও উপড়ে গেছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে।

আবহাওয়াবিদ আয়েশা খানম আরটিভি অনলাইনকে বলেন, আগামী তিনদিন সারা দেশে বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টির প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।

তিনি আরও বলেন, এই সময়ে বৃষ্টিপাত, বিজলী চমকানো ও বজ্রপাতের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। বগুড়া, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইলসহ পার্শ্ববর্তী অঞ্চল এবং ঢাকা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলসমূহে এসময় বজ্রপাত, শিলাবৃষ্টি, ভারী বৃষ্টিপাত ও কালবৈশাখী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সাধারণত এ মৌসুমে বিকেলের দিকে বজ্রমেঘ তৈরি হয়ে থাকে।

সকাল ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া এবং বিজলী চমকানোসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী বর্ষণ ও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সিনপটিক অবস্থায় দেখা যায়, পশ্চিমা লঘুচাপ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশে অবস্থান করছে। মৌসুমের অস্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থা করছে।

এদিকে সকালে ঢাকায় দক্ষিণ বা দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার এবং অস্থায়ী দমকায় পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিকে ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার গতিতে বাতাস বয়ে যায়।

অপরদিকে বৈরী আবহাওয়ার কারণে ঢাকা থেকে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। পাশাপাশি নদী পথে থাকা সকল নৌযানকে তীরে যাওয়ার নির্দেশও দেয়া হয়।

বিআইডব্লিউটিএর জনসংযোগ কর্মকর্তা মোবারক হোসেন মজুমদারের বিষয়টি আরটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন।