সংকট স্বত্ত্বেও সফল খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

0
1561

কামরুল হোসেন মনি:
পর্যাপ্ত জনবল ও যানবাহন সংকটে রয়েছে খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। মাত্র ১৩ জন কর্মকর্তা কর্মচারি নিয়ে কার্যক্রম চালিয়ে আসছে এই কার্যালয়টি। এ রকম সংকটের মধ্যে দিয়েই গত এক বছরে এ সংস্থাটি মোবাইকোর্ট মিলে ৯০৩ টিঅভিযান পরিচালনা করেন। এ সময়ে মধ্যে ইয়াবা, ফেনসিডিল, গাজাসহ বিভিন্ন মাদক জব্দ করা হয়। আসামি করা হয় ২৮৫ মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এরকম পরিস্থিতির মধ্যে দিয়েই আজ মঙ্গলবার পালিত হবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ২৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। এবারে প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘মাদক বিনোদনের মাধ্যম নয়, আতœহননে পথ’।
জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় এর উপ-পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামান বলেন, কয়েক বছর ধরে গোয়েন্দা বিভাগের কোন যানবাহন নেই। ‘ক’ ও ‘খ’ সার্কেলের বিপরতী রয়েছে একটি গাড়ি। পূর্বে গোয়েন্দার বিভাগের গাড়িটি নষ্ট হওয়ার পর থেকে এ কার্যালয়ে নতুন করে গাড়ি পাওয়া হয়নি। যার কারণে অনেক সময় অভিযানে ব্যহৃত হচ্ছে। সেই সাথে রয়েছে জনবলের সংকট। জনবল ও যানবাহন সংকট দুর হলে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমও আরো গতিশীল হবে বলে তিনি মনে করেন। বিষয়টি সংস্থার উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। তারা এ বিষয়ে খুব শিগগির পদক্ষেপ নেবেন বলে তিনি আশাবাদী।
জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় সূত্র মতে, ওই কার্যালয় উপ-পরিচালকসহ ২৪টি পদের সংখ্যা রয়েছে। এর মধ্যে বর্তমানে ১৩ জন কর্মকর্তা-কর্মচারি নিয়ে সংস্থাটি পরিচালনা করা হচ্ছে। বর্তমানে একজন পরিদর্শক, ৬ জন সিপাহী, ১ জন হিসাবরক্ষক ও পরিচচ্ছন্ন কর্মী পদটি শুণ্য রয়েছে। দীর্ঘ বছর ধরে ওই সব পদে শুন্য থাকায় বিশেষ করে পরিদর্শক ও সিপাহী না থাকায় অনেক সময় অভিযানে ব্যাঘাত হচ্ছে। গোয়েন্দা বিভাগের নিজস্ব যানবাহন না থাকার কারণে সময়মতো অভিযানে মুভ করতে পারছে না।
ওই সূত্র মতে, ২০১৭ সালে ‘ক’ ও ‘খ’ এবং গোয়েন্দা বিভাগ মিলে ৯০৩টি অভিযান পরিচালনা করেন। যার মধ্যে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয় ৯২টি। এই সময়ের মধ্যে বিভিন্ন মাদক থাকার অভিযোগে ২৮৫ জন মাদক বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট ও নিয়মিত মামলা দায়ের করেন। যার মধ্যে নিয়মিত মামলার সংখ্যা রয়েছে ১৯৩টি। গত এক বছরে ইয়াবা ৭ হাজার ৭৫৮ পিস, ফেনসিডিল ৩১৪ বোতল, গাজা ২৮ কেজি ৭৫০ গ্রাম, বিয়ার ১৪ ক্যান, হেরোইন ১১ দশমিক ৫ গ্রাম, চোলাইমদসহ বিভিন্ন মাদক উদ্ধার করেন। এছাড়া মাদক বিক্রির ৪১ হাজার টাকা জব্দ করেন। এদিকে এই সংস্থার জনবল ও যানবাহন সংকটের মধ্যে দিয়ে সারা দেশের ন্যায় খুলনা কার্যালয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ২৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করবেন। ‘মাদক বিনোদনের মাধ্যম নয়, আতœহননে পথ’ এই প্রতিবাদ্যকে সামনে রেখে আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, খুলনা কার্যালয় দিবসটি পালনের লক্ষে নানা কর্মসূচি গ্রহন করেছেন। সারাদেশে  মাদকবিরোধী অভিযান জোরদারকরণ ও গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে জানুয়ারি -২০১৮ মাদকবিরোধী অভিযান ও প্রচারণা মাস  ঘোষণা করে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেন। এ কর্মসূচির  অংশ হিসেবে জেলা প্রশাসন, খুলনা এর সহযোগিতায় জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়, খুলনা ও বেসরকারি সংস্থা’র উদ্যোগে দিবসটি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উদ্বোধন করবেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। এ সময় আইন শৃঙ্খলার বাহিনী বিভিন্ন সংস্থার উর্দ্ধতন র্কমর্কতা ও বেসরকারি সংস্থা সমূহের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত থাকবেন।