শেষ মুহূর্তের গোলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন স্পেন

0
255

স্পোর্টস ডেস্ক:
ইতিহাস তৈরি দ্বারপ্রান্তে এসেও থামতে হলো মরক্কোকে। স্পেনের বিপক্ষে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ২-২ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে আফ্রিকার দেশটি। আর তাই রাশিয়া বিশ্বকাপের গ্রুপ ‘বি’তে শীর্ষস্থান দখলে রেখেই নক-আউট পর্বে পা রাখলো ২০১০ সালের চ্যাম্পিয়নরা।

সোমবার খেলার শুরু থেকেই মরক্কোকে চেপে ধরেছিল সার্জিও রামোসের দল। ঝড়ের মতো একের পর এক আক্রমণ বারবার আছড়ে পড়েছিল মরক্কোর বক্সে।

প্রথম দিকে স্প্যানিশ টিকিটাকায় মরক্কোকে বেশ বেসামালই লাগছিল। কিন্তু ১৫ মিনিটের মাথায় সেন্টার হাফে ব্যাক পাসের সামান্য ভুল আর তারই খেসারত দিতে হয় স্প্যানিয়ার্ডদের।

ইনিয়েস্তার করা ব্যাক পাস ধরতে একটু ভুল করে ফেলেছিলেন পিকে। আর এই সুযোগেই মরক্কোর খালিদ বাউটেইব বলের নাগাল পেয়ে যান। ভুল করেননি তিনি। সামনে বাধাহীন অবস্থাতেই স্পেনের বক্সে ঢুকে পড়েন তিনি। এরপর স্পেনের গোলকিপার ডি গিয়াকে পরাস্ত করতে খুব একটা কসরত করতে হয়নি বাউটেইবকে। ঠাণ্ডা মাথাতেই গোলকিপারের পায়ের ফাঁক দিয়ে বল ঠেলে দেন।

এই গোলের সঙ্গে সঙ্গে এদিন বিশ্বকাপে একটি ইতিহাসও তৈরি করে ফেলে মরক্কো। ২০ বছর ধরে বিশ্বকাপ খেললেও এই প্রথম এই প্রতিযোগিতায় কোনও গোল পায় মরক্কোনরা। কিন্তু এই আনন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি মরক্কো শিবিরে। কারণ আন্দ্রে ইনিয়েস্তা! এই এই মিডফিল্ডারের ভুল পাসেই বলের নাগাল পেয়ে গিয়েছিল মরক্কো। সেই ভুলের যেন প্রায়শ্চিত্ত করেন বার্সেলোনার সদ্য সাবেক এই তারকা।

১৯ মিনিটের মাথায় প্রায় একক দক্ষতায় ড্রিবল করে ধরাশায়ী করে দেন মরক্কোর ডিফেন্সকে। কিন্তু ইনিয়েস্তার সামনে চলে এসেছিল মরক্কোর আরও দুই ফুটবলার। বল নিয়ে তাদের সঙ্গে সরাসরি লড়াইয়ে আর যাননি ইনিয়েস্তা। সবাইকে অবাক করে দিয়ে হাল্কা ব্যাক হিলে বলটাকে সুচতুর উপায়ে বাড়িয়ে দেন অপেক্ষাকৃত অরক্ষিত জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা ইসকোর কাছে। ভুল করেননি রিয়াল ফরোয়ার্ড। পায়ের আঙুলের ডগার মাটি ঘেঁষা শটে মরক্কোর জালে বল ঢুকিয়ে দেন।

প্রথমার্ধের খেলার শেষের দিকে গোলের আরও এক সুযোগ তৈরি করেছিল স্পেন। কিন্তু স্ট্রাইকারদের ব্যর্থতায় সেই সব সুযোগ কাজে লাগানো যায়নি। এদিন স্পেনের আক্রমণভাগকে প্রায় একার হাতেই নেতৃত্ব দেন ইনিয়েস্তা। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হতেই আক্রমণ ও প্রতি আক্রমণে জমে ওঠে ম্যাচ। ৬১ মিনিটের মাথায় প্রায় গোল খেতে খেতে বেঁচে যায় স্পেন।

এবারের বিশ্বকাপে প্রতিটি ম্যাচে লড়াই করলেও গোল না করতে পারার ব্যর্থতা তাদের বিদায়কে নিশ্চিত করে ফেলেছিল। ফলে এদিনের ম্যাচে মরক্কানদের উপরে সেভাবে কোনও মানসিক চাপ ছিল না। এই পরিস্থিতিতে মানসিক চাপমুক্ত হয়েই তারা খেলতে নেমেছিল। ৮১ মিনিটে সুযোগও পেয়ে যায় মরক্কো। এন নেইসেইরি দ্বিতীয় গোল করে এগিয়ে দেন দলকে। এরপর অনেক চেষ্টা করলেও ৯০ মিনিট পর্যন্ত মরক্কোর গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ হয় স্পেন।

শেষমেশ ইনজুরি টাইমে স্পেনের আসপাস গোল করে সমতা ফেরান। ২-২ গোলে ড্র হয়ে যায় মরক্কো ও স্পেনের ম্যাচ। আর ম্যাচ না হারায় গ্রুপ লিগে শীর্ষে থেকেই শেষ দ্বিতীয় রাউন্ডে চলে যায় ইউরোপের দলটি।