শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশেরই পরাজয়

0
271

খেলা ডেস্ক, খুলন্ টাইমস:

২১১ তারা করতে নেমে ১৪ রানেই দুই উইকেট পড়ার পর মিঠুনের কাছে সুযোগ এসেছিল সে প্রশ্নের উত্তর দিতে। ১৬৬.৬৭ স্ট্রাইকরেট টি-টোয়েন্টি সক্ষমতার কথাই বলছে। তবে এই স্ট্রাইক রেট মাত্র ৩ বলের (৫ রান)। বাংলাদেশের স্কোর তখন ৩ উইকেটে ২২ রান!
কারণ আগের ম্যাচের দুই সফল ব্যাটসম্যানের যে আজ আর সফল হতে ইচ্ছে হলো না। দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলে অফ স্টাম্পের বেশ বাইরের বল জোর করে খেলতে গিয়ে বল আকাশে তোলেন সৌম্য। শেহান মাদুশঙ্কার করা পরের ওভারের তৃতীয় বলেই জঘন্য এক শট খেলে আউট মুশফিক! তামিম ও মাহমুদউল্লাহকে রান তাড়া নয়, ইনিংস মেরামতে নামতে হলো। কিন্তু মেরামত হওয়ার আশা শেষ হয়ে গেল তামিমের আরেকটি বাজে শটে। ২ ছক্কা ও ২ চার মারা তামিমের ২৩ বলে ২৯ রানের ইনিংস অবশ্য এমনিতেও দলকে জয়ের পথে রাখার জন্য যথেষ্ট ছিল না।
জাকির ও আফিফ দ্বিতীয় সুযোগ না পেলেও আরিফুলকে আজও নামানো হয়েছিল। জীবন মেন্ডিসের একটি সোজা বল বুঝতে না পারে দ্বিতীয় সুযোগে ২ রান করেই ফিরলেন বিপিএলে নজর কাড়া এই ব্যাটসম্যান। মাহমুদউল্লাহ (৪১) আর সাইফউদ্দিন (২০) শেষ একটা চেষ্টা চালালেন, ম্যাচ জেতানোর জন্য নয় ২০ ওভার কাটানোর জন্য। একটু আগেই ব্যাটিং স্বর্গ মনে হওয়া উইকেটটা তখন যেন মাইন পোতা কোনো যুদ্ধক্ষেত্র! ১৫তম ওভারে ৪ বলের মধ্যে এ দুজনও চলে গেলেন। ১১৩ রানে ৭ উইকেট হারালেও বাংলাদেশকে অন্তত একটা স্বস্তি দিয়ে ফিরেছেন সাইফউদ্দিন। যাক, বাংলাদেশ অন্তত ১০০ হারে হারছে না! শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ হেরেছে ৭৫ রানে।