শেখ হাসিনা ও আ’লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না : মংলায় সিটি মেয়র

0
469

মাহমুদ হাসান, মংলা থেকে : বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার দল আওয়ামীলীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না। আমারা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় রাজনীতি করি। বিএনপি আইন করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার রোধ করেছিলো। ২১ বছর আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে ২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করে। ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এসে হত্যা-সন্ত্রাস-চাঁদাবাজি রাজনীতি শুরু করেছিলো। ২০০৮ সালে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় আসার পর আমাদের নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রতিহিংসার রাজনীতি করা যাবে না।
৬ অক্টোবর শনিবার বিকেলে মংলা উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের আয়োজনে দলীয় কার্য্যালয় চত্বরে নির্বাচনী কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এ কথা বলেন। বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত কর্মী সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মংলা সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ সুনিল কুমার বিশ্বাস।
সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মংলা-রামপাল বাগেরহাট-৩ এর সংসদ সদস্য বেগম হাবিবুন নাহার, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হ্ওালাদার, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস কামরুন্নাহার হাই, পৌর আ্ওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সেখ আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক সেখ আব্দুর রহমান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম হোসেন। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান শেখ কবির হোসেন, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইকবাল হোসেন, পৌর যুবলীগ সভাপতি শেখ কামরুজ্জামান জসিম, সিনিয়র সহ সভাপতি এস এম কবির হোসেন,সাধারণ সম্পাদক শেখ আল মামুন, সিনিয়র যুগ্ন সাধারন সম্পাদক নুর আলম জিকু, ছাত্রলীগ নেতা কে এম এইচ রানা, শিকদার ইয়াসিন আরাফাত, কামরুজ্জামান রাসেল, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ’র সভাপতি ইমরান বিশ্বাস ও সহ সভাপতি ফিরোজ শাহ। এছাড়া কর্মী সমাবেশে ইউপি চেয়ারম্যান নিখিল চন্দ্র রায়, মোল্লা মোঃ তারিকুল ইসলাম, চিলা ইউপি চেয়ারম্যান গাজী আকবর হোসেন, সোনাইলতলা ইউপি চেয়ারম্যান নাজিনা বেগম নারজিন, আওয়ামীলীগ নেতা ফ্রান্সিস সুদান হালদার, গাজী তৈয়াবুর রহমান, এ্যাডঃ আব্দুস সালাম, কাজী গোলাম হোসেন বাবলু, উৎপল মন্ডল এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
কর্মী সমাবেশে বেগম হাবিবুন নাহার এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতায় মংলা-রামপালে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। মৃত মংলা বন্দর ঘুরে দাড়িয়েছে এবং লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। সরকারের ৮টি মেগা প্রজেক্ট মংলা-রামপালকে ঘিরে বাস্তবায়িত হচ্ছে। উন্নয়নের এই ধারাকে অব্যাহত রাখতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে আবারো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করতে হবে। কর্মী সমাবেশে প্রায় ৫ হাজার দলীয় নেতা কর্মী নৌকার প্রতীকের শ্লোগান দিয়ে বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে সমাবেশস্থলে আসে।
সকালে খুলনা সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক মংলার বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজে যান এবং গভর্ণিং বডির সভায় সভাপতিত্ব করেন। এসময় তিনি কলেজের উন্নয়ন কর্মকান্ডের খোজ নেন। বিকেল সাড়ে ৩টায় সিটি মেয়র মংলার ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলার স্টল পরিদর্শন করেন। মেলা চত্তরে বেগমহাবিবুন নাহার এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হ্ওালাদার, উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রবিউল ইসলাম, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সেখ আব্দুস সালাম এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন।