শিশু সিমু ধর্ষণ করে হত্যা মামলা প্রত্যাহারের বাদীকে জীবননাশের হুমকি

0
484

ফুলবাড়ীগেট প্রতিনিধিঃ কুয়েট ক্যাম্পাসস্থ উন্মেষ সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী যোগিপোল ৭ নং ওয়ার্ডের জব্বারের বাড়ীর ভাড়াটিয়া ট্রাক ড্রাইভার হালিম হাওলাদারের কন্যা সাদিয়া আক্তার শিমু (৮)কে ধর্ষণ করে নির্মমভাবে হত্যাকান্ডের অনেক নাটকিয়তার মধ্যে শেষ পর্যন্ত দৌলতপুর থানায় ধর্ষণ করে হত্যা, অপরাধ সহায়তা এবং গোপনকরার অপরাধে মামলা দায়ের হলেও মামলার ২নং আসামী হত্যার পরিকল্পনা এবং সহযোগি ধর্ষকের বোন ট্রাক ড্রাইভার সাদ্দামের স্ত্রী শারমিনকে বাচাতে প্রভাবশালী একটি মহল তৎপর শুরু করেছে। মামলায় আটককৃত সাদ্দামের শালা মোঃ হাবিবুর রহমান পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এবং প্রথম শ্রেনীর ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে। এই চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার বাদী তোতা শেখকে মামলা তুলে নিতে জীবননাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে বাদী তোতা শেখ খানজাহান আলী থানায় সাধারণ ডায়রী করেছে। তোতা শেখ জানান, ধর্ষনের পর শিমুকে নির্মমভাবে হত্যা করার পর ঘটনা ভিন্ন দিকে প্রভাবিত করতে পরিকল্পিত হত্যাকে অপমৃত্যু বলে চালিয়ে দিয়ে সাজানো হয় পানিতে ডুবে মৃত্যুর নাটক। প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ হওয়ায় নিশ্চিত সাজা জেনে হাবিবুরের বোন জামাই ট্রাক ড্রাইভার সাদ্দাম ফুলবাড়ীগেট বাজারের বেবী ষ্টান্ডে সন্ধ্যায় মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়ার হুমকি দেন। মামলা প্রত্যাহার না করলে আমাকে এবং আমার পরিবারকে হত্যা করে গুম করার হুমকি প্রদান করে। বিষয়টি অবহিত করে সংশ্লিষ্ট থানায় জিডি করা হয়েছে(যার নং ৩৯৮)।
উল্লেখ্য সিমু গত ১ অক্টোবর তার মামার বন্ধ ুদৌলতপুর থানাধীন রেলিগেট সাহেবপাড়া এলাকায় সাদ্দাম এবং তার স্ত্রী জোর করে তাদের বাসায় বেড়াতে নিয়ে গেলে সেখানে গত ২ অক্টোবর তাকে ধর্ষণ করে নির্মম ভাবে হত্যা করে। এ ব্যাপারে দৌলতপুর থানায় মামলা হয়েছে মামলা নং ১০ তাং ৬/১০/১৮।