শিরোমনি জুট স্পিনার্সের উৎপাদন চালুসহ বকেয়া দাবী আদায়ে সংগ্রাম পরিষদ গঠনঃ কর্মসুচি ঘোষনা

0
408

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা) প্রতিনিধি :
শিরোমনি শিল্পাঞ্চালের ব্যাক্তিমালিকানা জুট স্পিনার্স মিলের উৎপাদন প্রক্রিয়া চালু সহ বকেয়া পাওনা পরিশোধের দাবীতে রাজপথে আন্দোলনের মুখে জেলা প্রাশাসকের দপ্তরে অনুষ্ঠিত ত্রি-পক্ষিয় বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হয়নি। দীর্ঘ সাড়ে ৫ মাসেও সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন এবং মিলের অবস্থার কোন পরিবর্তন না হওয়ায় দাবী আদায়ের লক্ষে গঠিত হয়েছে দাবী আদায় সংগ্রাম পরিষদ। ঘোষনা করা হয়েছে তাৎক্ষনিক ভাবে দুই দিনের কর্মসুচি।
জানাগেছে, শিরোমনি শিল্পাঞ্চালের ব্যাক্তিমালিকানা জুট স্পিনার্সের মালিক মোঃ সামছুজ্জোহা কোন নোটিশ বা কোন পূর্ব ঘোষনা ছাড়াই ২০১৬ সালের ২৫ আগষ্ট থেকে মিলটির উৎপাদন প্রক্রিয়া বন্ধ করে মিলটি কৌশলে অঘোষিত বন্ধ করে রেখেছে। মিলের নেতৃবৃন্দ জানান, মিলের হুইসেল বাশি বাজানো হচ্ছে কিন্তু মিলের উৎপাদনের কার্যক্রম নাই। নাই শ্রমিক-কর্মচারীদের পাওনা মজুরীর খবর। মিলটিতে স্থায়ী ও অস্থায়ী মোট ১৬শ শ্রমিক কর্মচারী রয়েছে যারা মিলটি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় অত্যান্ত মানবেতন জীবন যাপন করছে। শ্রমিকদের গত ৪টি উৎসব বোনাস, মিলের বন্ধ তারিখ থেকে অদ্যবদি ৬২ সপ্তাহের সকল বকেয়া মুজুরী, কর্মচারী-কর্মকর্তাদের ২০ মাসের বকেয়া বেতন, শ্রমিকদের ঈদের অতিরিক্ত নিয়ম বহিরভূত বন্ধের মুজুরী, শ্রমিকদের মুজুরী কমিশনের এরিয়া, বকেয়া ইনক্রিমেন্টের এরিয়া সহ চলতি ইনক্রিমেন্টের মজুরীর মোট প্রায় ৭ কোটি টাকা বকেয়া পাওনা রয়েছে। মিলের সৃষ্ট সমস্যার সমাধানে কঠোর আন্দোলনের মুখে গত ১৮ জুন রবিবার খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ত্রি-পক্ষিয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া পাওনা পরিশোধ এবং দাবী সমুহের সন্তোষজনক সমাধান হলে সকল আন্দোলন কর্মসুচি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। কিন্তু দীর্ঘ প্রায় সাড়ে পাঁচ মাসেও বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হয়নি। পরিশোধ করা হয়নি শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া পাওনাদি। এই অবস্থায় গত ২ ডিসেম্বর শনিবার গঠিত হয়েছে দাবী আদায় সংগ্রাম পরিষদ। খানজাহান আলী থানা আ’লীগের সভাপতি শেখ আবিদ হোসেনকে আহবায়ক, আটরা গিলাতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ মনিরুল ইসলামকে যুগ্ন আহবায়ক, খ.ম লিয়াত আলীকে সদস্য সচিব, আবুল কালাম, মোঃ নুরুল ইসলাম, মোঃ শহিদুল ইসলাম ও রবিউল ইসলামকে সদস্য করে ৭ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। গঠিত কমিটি তাৎক্ষনিক ভাবে দাবী আদায়ে ঘোষনা করেছেন দুই দিনের কর্মসুচি। কর্মসুচির প্রথম দিনে শনিবার সন্ধ্যায় খুলনা যশোর মহাসড়কের শিরোমনি এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ করে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ৩৪ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক খ.ম লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন, খানজাহান আলী থানা আ’লীগের সভাপতি শেখ আবিদ হোসেন, আটরা গিলাতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ মনিরুল ইসলাম, মোল্যা নুরুল ইসলাম, আব্বাস হোসেন, শেখ মিজানুর রহমান, মোঃ শহিদুল ইসলাম, আবুল কালাম, নুরুল ইসলাম, শেখ রবিউল ইসলাম, শেখ মনিরুল, শেখ জাকির হোসেন, মীর সিরাজুল ইসলাম, ফারহান অভি, শেখ শহিদুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন প্রমুখ। কর্মসুচির মধ্যে আগামী ৬ ডিসেম্বর বুধবার মৎস ও প্রাণী সম্পাদক মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, সংসদ সদস্য বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, আলহাজ্জ মিজানুর রহমান এম.পি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ কমিশনার ও জেলা যুগ্ন শ্রম পরিচালক, উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আকরাম হোসেন সহ বিভিন্ন দপ্তরে স্বারকলিপি প্রাদানের মাধমে পরবর্তি রাজপথ রেলপথ অবরোধ সহনতুন কর্মসুচি ঘোষনা করা হবে জানিয়েছেন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।