শরণখোলায় রাস্তা কেটে চাষের জমির সাথে বিলীন, ১৫টি সংখ্যালঘু পরিবার অবরুদ্ধ

0
43

শরণখোলা আঞ্চলিক অফিস:
শরণখোলায় চলাচলের রাস্তা কেটে চাষের জমির সাথে বিলীন করে দিয়ে ১৫টি সংখ্যালঘু পরিবারকে অবরুদ্ধ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার (৬ মে) সকালে উপজেলার ধানাসগর ইউনিয়নের রতিয়া রাজাপুর (বাওড়) গ্রামে ।
সোমবার দুপুরে সরেজমিনে রতিয়া রাজাপুর গ্রামের হিন্দুপাড়ায় গেলে ভূক্তভোগী সমির হালদার,পুলিন ঢালী, সুখরঞ্জন হালদার ও সুরেন হালদার জানান, দীর্ঘ চল্লিশ বছর যাবৎ তারা এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করছেন। সরকারের অর্থে একাধিকবার রাস্তাটি সংস্কার করা হয়েছে বর্তমানে স্থানীয় সংসদ সদস্য এই রাস্তায় ইট সলিং করার জন্য টাকা বরাদ্দ করেছেন। হঠাৎ করে রবিবার সকালে রতিয়া রাজাপুর গ্রামের প্রভাবশালী বিকাশ হালদার, অমল হালদার, ফণিভূষন হালদার ও গৌতম হালদার তাদের ভাড়াটে লোকজন নিয়ে কোদাল ও খোন্তা দিয়ে চল্লিশ বছরের পুরোনো লোক চলাচলের প্রায় ৬শ ফুট রাস্তার মাটি উপড়ে চাষের জমির সাথে মিশিয়ে দিয়েছেন। ফলে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে ওই রাস্তার পাশে থাকা ১৫টি পরিবার। তাদের পথচলা বন্ধ হয়ে গেছে।
অভিযুক্ত বিকাশ হালদার ও অমল হালদার বলেন, এটা কোন সরকারী রাস্তা নয় তাদের রেকর্ডিয় জমি তারা চাষের জমির সাথে মিলিয়ে নিয়েছেন ।
ধানসাগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাইনুল ইসলাম টিপু জানান, রতিয়া রাজাপুর গ্রামের হিন্দু পাড়ায় ওই রাস্তার মাটি কাটতে নিষেধ করেছিলাম তারা তা অমান্য করে মাটি কেটে সমান করে মানুষের পথ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে তিনি এ ব্যপারে প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করেন।
শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন এবং ঘটনাস্থলে সার্ভেয়ার পাঠানো হয়েছে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here