লড়াইটা দুই দলের দুই গোল পিপাসুর

0
395

র্স্পোটস ডস্কেঃ
দ্যা গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ হিসেবে পরিচিত বিশ্বকাপ ফুটবলের এবারের আসরের প্রথম রাউন্ড শেষ হয়েছে দুই দিন আগে। বিশ্বকাপ প্রধান আকর্ষণ ‘ডু অর ডাই’ রাউন্ড অর্থাৎ নকআউট পর্বের খেলা শুরু হবে আজ থেকে।

প্রথম দিনেই মাঠে নামছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল এবং লুইস সুয়ারেজের উরুগুয়ে । মোটামুটি তারকা ভরপুর হাইভোল্টেজ এই ম্যাচের মূল পাদপ্রদীপের আলো থাকবে দুই দলের দুই প্রাণভোমরা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও লুইস সুয়ারেজের উপর, যারা প্রথমবারের মত জাতীয় দলের হয়ে একে অপরের মুখোমুখি হচ্ছেন । ম্যাচের ভাগ্য অনেকাংশে এই দুই প্লেমেকারের উপর নির্ভর করছে ।

দুই স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনাতে খেলার সুবাদে এমনিতেই এই দুইজন একে অপরের প্রবল প্রতিপক্ষ । এবার জাতীয় দলের জার্সি রঙিণ করার পালা। গোল ক্ষুধায় রয়েছেন দুই ফুটবলার। শেষ পর্যন্ত তার পিপাসা মেটে সেটাই দেখার।

নিঃসন্দেহে রোনালদো বর্তমান সময়ের সেরা দুইজন খেলোয়াড়ের একজন । মেসির সাথে যৌথভাবে রেকর্ড পাঁচবার ব্যালন ডি অর জিতেছেন সিআর সেভেন । গোল্ডেন শু, গোল্ডেন বুট সহ ঝুলিতে রয়েছে আর নানা পদক। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে জিতেছেন টানা তিনবার ইউরোপ সেরা চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা । সেই সাথে রয়েছে ক্লাবের হয়ে আরো নানা শিরোপা। জাতীয় দলের হয়ে তারই নেতৃত্বে পর্তুগাল জিতেছে সর্বশেষ ২০১৬ ইউরো শিরোপা । জাতীয় দলের ফর্ম ধরে রেখেছেন বিশ্বকাপে। বাছাইপর্বে তার নৈপুণ্যেই পর্তুগাল বিশ্বকাপের টিকিট পায়। মূল পর্বেও একেবারে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, করেছেন হ্যাটট্রিকসহ চার গোল।

রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮:
রোনালদো                              সুয়ারেজ

গোল                                 ৪                                        2

শট                                ২৮                                      ৩২

শট অন টার্গেট        ৩৯.১%                               ৪৩.৮%

বড় সুযোগ                       ৪                                       ১১

সেই তুলনায় সুয়ারেজ কিছুটা পিছিয়ে। কিন্তু তার গোল ক্ষুধা মোটেও কম নয় । বার্সেলোনার হয়ে জিতেছেন ক্লাব ফুটবলের সম্ভাব্য সকল শিরোপা । সর্বশেষ মৌসুমে জিতেছেন স্প্যানিশ লিগ ও কাপ শিরোপা । নিজের দেশ উরুগুয়েকে করেছেন ২০১১ দক্ষিণ আমেরিকার সেরা কোপা চ্যাম্পিয়ন ।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও লুইস সুয়ারেজ দুইজনেই বিশ্বকাপে সমানসংখ্যক ৭ গোল করেছেন । কিন্তু রোনালদো খেলছেন চতুর্থ বিশ্বকাপ। আর রাশিয়া বিশ্বকাপ সুয়ারেজের দ্বিতীয়। দুই স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনাতে খেলার সুবাদে গত তিন মৌসুম ধরে একে অন্যের মুখোমুখি হচ্ছেন দুজন । বার্সেলোনার হয়ে সুয়ারেজ ১৩৩ ম্যাচে ১১২ গোল ও ৫৪ এসিস্ট করেছেন । অপরদিকে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে রোনালদো ১৩০ ম্যাচে ১৩২ গোল ও ৪৪ এসিস্ট করেছেন । একে অপরের মুখোমুখি সব ম্যাচ মিলিয়ে রোনালদো গোল করেছেন ৪ টি এবং সুয়ারেজের ৭টি ।

বিশ্বকাপের এবারে আসরে নিজেদের গ্রুপ থেকে সব ম্যাচ জিতে নকআউট পর্বে পা রেখেছে উরুগুয়ে । অপরদিকে পর্তুগালও হয়েছে গ্রুপ সেরা , তবে তারা স্পেন ও ইরানের সাথে ড্র করে ধুঁকে ধুঁকে উঠেছে নকআউট পর্বে । সুয়ারেজ তার সাথে দলে পাচ্ছেন কাভানি, গডিন, পেরেইরার মত নির্ভরশীল তারকা খেলোয়াড় । সবচেয়ে বড় কথা সবুজ টার্ফে সংঘবদ্ধ একটা দলকে পাওয়া যায়, কোন নিদিষ্ট খেলোয়াড়ের উপর নির্ভরশীল নয় ।

এদিক থেকে রোনালদোর পর্তুগাল পিছিয়ে । তার দলে নেই ভরসা করার মত কোন খেলোয়াড়, রোনালদোই সবে ধন নীলমণি। কিন্তু প্রতিপক্ষ শিবিরে আতঙ্ক ছড়ানোর জন্যে শুধু রোনালদোর নামটাই যথেষ্ট। এক প্রতিবেদনে মার্কা লিখেছে, সুয়ারেজ ও কাভানির সমান এক রোনালদো!

বয়স হিসেবে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো (৩৩) ও লুইস সুয়ারেজের (৩১) এটা শেষ বিশ্বকাপ হবার সম্ভাবনা প্রবল। কে জানে বিধাতা হয়তো তাদের শেষ বিশ্বকাপে অন্যরকম বিশেষ কিছু লিখে রেখেছেন । নিজেদের সম্ভাব্য একমাত্র বিশ্বকাপ সাক্ষাতে শেষ হাসি থাকে কার মুখে, রোনালদো নাকি সুয়ারেজের । উওরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে কয়েক ঘন্টা। ফুটবল প্রেমিরা যে এক বিস্ফোরক ম্যাচ পেতে যাচ্ছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।