লালমনিরহাটে হত্যার পর লাশ পোড়ানোর ঘটনায় মসজিদের খাদেমসহ গ্রেপ্তার আরও ৫

0
169

টাইমস ডেস্ক:
লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দর এলাকায় গণপিটুনিতে নিহত শহীদুন্নবী জুয়েলকে হত্যা ও লাশ পোড়ানোর দায়ে পৃথক তিনটি মামলায় বুড়িমারী জামে মসজিদের খাদেম জোবেদ আলীসহ (৬০) আরও পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে মোট ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো। গ্রেপ্তাররা সবাই বুড়িমারীর বাসিন্দা। গতকাল সোমবার দুপুরে পাটগ্রাম থানা পুলিশের ওসি সুমন্ত কুমার মোহন্ত এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তদন্তের স্বার্থে বাকি চারজনের নাম প্রকাশ করেননি তিনি। এদিকে ঘটনার পর প্রথম দফায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে গত রোববার আদালতে নেয় পুলিশ। এরপর গতকাল সোমবার সকালে আরও পাঁচজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হলো। এ ঘটনায় পৃথক তিনটি মামলায় মোট ১০ জনকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ। তবে প্রথম দফায় গ্রেপ্তার পাঁচজনকে হত্যা মামলায় পাঁচদিন করে রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পরিদর্শক মাহমুদুন্নবী। আদালত আজ মঙ্গলবার রিমান্ড আবেদনের শুনানির দিন ধার্য করে গ্রেপ্তারদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। দ্বিতীয় দফায় গ্রেপ্তার খাদেমসহ পাঁচজনকে গতকাল সোমবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। প্রথম দফায় গ্রেপ্তাররা হলেন- বুড়িমারী এলাকার ইসমাইল হোসেনের ছেলে আশরাফুল আলম (২১) ও বায়েজিদ (২৪), ইউসুব আলী ওরফে অলি হোসেনের ছেলে রফিক (২২), আবুল হাসেমের ছেলে মাসুম আলী (৩৫) এবং সামছুল হকের ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৫)। এই পাঁচ আসামির দিনের রিমান্ড চেয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা। শহিদুন্নবী জুয়েলকে হত্যার ঘটনায় তার চাচাতো ভাই সাইফুল আলম বিপ্লব বাদী হয়ে গত শনিবার পাটগ্রাম থানায় মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশের ওপর হামলার দায়ে পাটগ্রাম থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান আলী বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করেন। এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদে ভাঙচুরের দায়ে অপর একটি মামলা করেন বুড়িমারী ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ নেওয়াজ নিশাত। তিনটি মামলা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মোহন্ত গতকাল সোমবার সকালে এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, তিনটি মামলায় এখন পর্যন্ত ১০ জন আসামি গ্রেপ্তার হয়েছে। আমরা ডিবিকে সহযোগিতা করছি। লালমনিরহাট ডিবির ওসি ওমর ফারুক বলেন, প্রথম ধাপে গ্রেপ্তার করা ৫ আসামিকে গত রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় লালমনিরহাট সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালত ৩-এ সোপর্দ করা হয়। এ সময় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। মঙ্গলবার এ আবেদনের শুনানি হবে। লালমনিরহাট পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা মামলা ডিবিতে হস্তান্তর করার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা সর্বো”চ গুরুত্ব দিয়ে এ ঘটনার তদন্ত করছি। কেননা, একজন নিরপরাধ ব্যক্তিও যেন হয়রানির শিকার না হন। এজন্য আমরা সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি। উল্লেখ্য, গত ২৯ অক্টোবর রাতে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বিক্ষুব্ধ জনতা শহীদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে তার শরীর আগুনে পুড়িয়ে দেয় উন্মত্ত জনতা।