রূপসায় ঘের ব্যবসায়ী সন্ত্রাসী হামলার শিকার, খুমেকে ভর্তি

0
444

নিজস্ব প্রতিবেদক: রূপসায় মোঃ ইব্রাহিম (২৭) নামে এক ঘের ব্যবসায়ীকে সন্ত্রাসীরা ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করেছেন। তাকে হাত-পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখম করা হয়। রোববার (২৮ অক্টোবর) রূপসা উপজেলার ৩নং নৈহাটি ইউনিয়ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ৯-১০ সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল ওরফে মীনা কামালের সন্ত্রাসী গ্রুপ এ হামলা চালিয়েছে বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ।
খুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মোঃ ইব্রাহিম জানান, ২৮ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উক্ত ইউনিয়নের তালিমপুর গ্রামে তার ইব্রাহিম এন্টারপ্রাইজ নামক ইট-বালু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর পাশাপাশি তিনি ঘেরের ব্যবসা করেন। ইটের গাড়ি চলাচল করায় তাদের রাস্তা ভেঙে যায়। এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা খন্দকারের সাথে বাক-বিত-া হয়। পরে ওই সময়ই মীমাংসা হয়ে যায়। পরে তার ইটের গোলার পাশেই ঘেরে চলে আসেন। এর কিছুক্ষণ পর উক্ত সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে মাওলা, আদম, মহিউদ্দিন, মনি, হুমায়ুন, বাবু ও সোহেলসহ ২৫-৩০ জন ধারাল অস্ত্র দিয়ে তার ওপর এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। তিনি বলেন, এ সময় আমি ডাক-চিৎকার দিকে গেলে আমার মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে ধরে হাতুড়ি দিয়ে আমার হাতে আঘাত করে। ছুরি দিয়ে পায়ে ও পিঠে  ঢোকাতে থাকে। পরে স্থানীয় বাসিন্দারা এগিয়ে আসলে তারা চলে যায়। প্রথমে তাকে রূপসা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে ওখানকার চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুমেক হাসপাতালে রেফার্ড করেন। চিকিৎসকরা জানান, ধারাল অস্ত্রের আঘাতে ক্ষত স্থানে ১৩-১৫টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।
ইব্রাহিমের মামা সাইফুল ইসলাম বলেন, ওই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে কেউ ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পায় না। তার সন্ত্রাসী বাহিনীর হাতে এলাকার নিরীহ মানুষ নির্যাতন শিকার হয়ে আসছে। বিষয়টি আমি তাৎক্ষণিক রূপসা থানার ওসিকে মোবাইল ফোনে জানালে তিনি থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করতে বলেন। তার ভাগ্নে সাবেক রূপসা-বাগেরহাট মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সেক্রেটারি মৃত মফিজুর রহমান মফির পুত্র ইব্রাহিম।
এ ব্যাপারে রূপসা থানার ওসি মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় তাকে কেউ অভিযোগ করেনি। যদি কেউ অভিযোগ করে তাহলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।