রূপসার ঘাটভোগে চলছে জুয়া ও মাদকের আসর, প্রশাসন নির্বীকার

0
382

রূপসা প্রতিনিধি:
রূপসায় উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের ঘাটভোগ গ্রামে মাদক সমাট্র ও জুয়ার বোর্ড প্রধান মান্নানের নেতৃত্বে চলছে দিন রাত মাদক ও জুয়ার রমরমা ব্যবসা। এলাকাবাসি এ ঘটনায় নির্বাক।
এলাকাবাসি জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ঘাটভোগ গ্রামে দিন রাত চালিয়ে আসছে জনৈক মান্নান তার বাহিনী দিয়ে জুয়া ও মাদকের আসর। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এ আসরে চলাচলা করে বহিরাগত লোকজন।
জেলা পুলিশ ও র‌্যাব কয়েকবার অভিযান চালিয়ে কয়েকজন জুয়াড়িকে আটক করে। কিছুদিন বন্ধ থাকার পর আবারও নতুন সাজে শুরু করে মান্নান তার ব্যবসা। অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে মান্নান চালিয়ে যাচ্ছে যুব সমাজ ধবংসের মত অপরাধ। আশপাশ কয়েকটি জেলা ও উপজেলার বড় বড় জুয়াড়িরা ও পেশাদার মাদক বিক্রেতারা আসেন তাদের ব্যবসা চাঙ্গা করার জন্য এখানে।
স্থানীয়রা এ অপরাধের প্রতিবাদ করলে তাদেরকে মামলায় জড়ানোর হুমকি দেওয়া হয়। তারা আরও বলেন মান্নান বলে থানা পুলিশ আমার পক্ষে। বেশি বাড়াবাড়ি করলে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করা হবে। যে কারণে নিরীহ গ্রামবাসি তাদের বিপক্ষে কথা বলে না। এ আসর চালানোর জন্য মান্নানের রয়েছে অর্ধশত দালাল সদস্য। তাদের প্রত্যেকে দিনে ৩০০/৪০০শত করে টাকা দেওয়া হয়। আরো জানা যায়, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় এ ধরণের অপরাধ মাসের পর মাস করে আসছে। খবর নিয়ে দেখা যায়, বিছুদিন পূর্বে এ আসরে মাদক বিক্রেতাদের মধ্যে বড় ধরনের সংর্ঘাতের সুষ্টি হয়। এতে কয়েকজন আহত হয়। পরবর্তীতে জুয়ার আসরের লোকজন নগরীর একটি ক্লাবে ও পাশ্ববর্তী উপজেলা ফকিরহাটের কাটাখালিতে খেলা শুরু করে। ফকিরহাট থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তা বন্ধ করে দেয়। যুব সমাজ ধবংসের নেতৃত্বেদানকারী মান্নান ধীরে ধীরে আবার লোকজন জড় করে শুরু করে জুয়ার আসরটি। প্রশাসন কয়েকবার অভিযান চালিয়ে তাদের উচ্ছেদ করে। পুনরায় কোন শক্তির জোরে আবারও চালিয়ে যাচ্ছে জুয়াও মাদকের আসরটি এলাকাবাসির তা জানা নাই। এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন বাদশা বলেন, আইন শৃংখলা কমিটির সভায় কয়েকবার এ বিষয় নিয়ে কথা বলেছি। কিছুদিন বন্ধ থাকার পর আবার শুরু হয়। তবে প্রশাসনকে দ্রুত ব্যবস্থা নেবার জন্য আহবান জানিয়েছেন তিনি।