রুপসা নৈহাটি ইউপিতে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশায় হেভিওয়েট, তরুণ ও নারী প্রার্থী

0
29

মফিজুল ইসলাম:
আগামী ১১ই নভেম্বর ২য় ধাপের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইউনিয়নগুলোতে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনের হাওয়া। মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রচার প্রচারনায় সরগরম সামাজিক মাধ্যমগুলোও। দলীয় মনোনয়ন পেতে প্রার্থীরা করছেন সবটুকুই। নেতাকর্মীদের ভীড়ে দলের স্থানীয় কার্যালয়ও সরগরম। এমন চিত্র মিলিছে খুলনায় রুপসা উপজেলার নৈহাটি ইউনিয়নে। অবশ্য, দলের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের সাথে শীর্ষ আশীর্বাদ নিতে বেশিরভাগ প্রার্থী এখন ঢাকায় রয়েছে।
সূত্রমতে, নৈহাটি ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার জন্য ইতোমধ্যে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের কাছে দলীয় মনোনয়নের প্রত্যাশায় আটজন জীবন বৃত্তান্ত জমা দিয়েছেন। এরা হলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মো: কামাল হোসেন বুলবুল, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন মুকুল, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্য শাহীনা আক্তার লিপি, রুপসা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এমডি রকিব উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মাহবুবুল আলম, উপজেলা যুবলীগের সদস্য নোমান উসমান রিচি, উপজেলা যুবলীগের সদস্য আবু আহাদ হাফিজ বাবু, নৈহাটি ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক ও উপজেলা সদস্য মো: বাদশা মিয়া।
ইতোমধ্যে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের জীবন বৃত্তান্ত জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। নৈহাটি ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেন বুলবুল ব্যতিত মনোনয়ন প্রত্যাশী ২ জন জেলা আওয়ামী লীগের, ২ জন উপজেলা আওয়ামী লীগের এবং ৩ জন উপজেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দ রয়েছেন। মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে আছেন একমাত্র নারী প্রার্থী শাহীনা আক্তার লিপি, দলের দুঃসময়ে রাজপথের নেত্রী লিপি জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি।
এই ইউনিয়নে জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দ প্রার্থী থাকায় তেমন কোনো আলোচনায় নেই গতবার নৌকার মনোনয়নে নির্বাচিত চেয়ারম্যান কামাল হোসেন বুলবুলকে নিয়ে। দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে জানতে চাইলে বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মো: কামাল হোসেন বুলবুল বলেন, জনপ্রতিনিধি হিসাবে বিগত সময়ে ২ বার মেম্বার, ১ বছর ভাপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও ২০১৬ সালে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে জয়লাভ করে ৫ বছর যাবত চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করছি। তিনি আরো বলেন দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছিলেন আমি জয়লাভ করে ইউনিয়নবাসীর পাশে থেকেছি। সরকারের সমস্ত সুযোগ সুবিধা যথাযথভাবে বন্টন করেছি। করোনাকালীন সময়ে সরকারের পাশাপশি নিজ উদ্যোগেও ইউনিয়ন বাসীর পাশে দাড়িয়েছি। জনপ্রতিনিধি ছাড়াও আমি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হিসাবে দলের ভাবমূর্তি রক্ষায় সব সময় কাজ করেছি। এই ইউনিয়নে কখনো গ্রæপিং হতে দেইনি। যেকোনো নির্বাচনে নৌকার জন্য নিরলস কাজ করেছি। এজন্য আমি আশাবাদী এবারও দল আমাকে মনোনয়ন দিয়ে ইউনিয়নবাসীর পাশে থেকে কাজ করার সুযোগ দিবেন।
দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামীলীগে সাংগঠনিক সম্পাদক এম ডি রকিব উদ্দিন বলেন, নৌকা শান্তি ও মুক্তির প্রতিক, মানুষকে আলোর পথ দেখানো প্রতিক। এই প্রতিক পবিত্র প্রতি আখ্যায়িত করে তিনি বলেন নেকৈা প্রতিক এমন লোকের প্রাপ্য যে নৌকার জন্য সারা জীবন কাজ করেছেন এবং যার কাছে এই প্রতিকের আমানত ঠিক থাকবে। ১৯৮৯ সাল থেকে ছাত্রলীগ থেকে রাজনীতি শুরু করা রকিব উদ্দিন আরো বলেন, আমি আওয়ামীলীগের দুঃসময় থেকে রাজনীতি করেছি। বিএনপি জামায়াতের আমলে ঘর ছাড়া ছিলাম দীর্ঘদিন। দলের যেকোনো ডাকে সাড়া দিয়ে নিজের জীবনবাজি রেখে এই দল করেছি। তিনি দুঃখ করে বলেন আজকে যাদের কাছে নৌকা সুরক্ষিত না, এমন লোকের হাতে নৌকা পড়ছে, এমনি ২০১৬ সালের পরে দলে আসা লোকও আজকে নৌকা পাচ্ছে। সেজন্য নৌকার প্রকৃত আমানতদাররা যেনো এই প্রতিক পায় সেজন্য তিনি মনোনয়ন চেয়েছি এবং আমি আশা করি দল আমাকে মনোনয়ন দিবেন।
তরুন প্রার্থী, উপজেলা যুবলীগের সদস্য আবু আহাদ হাফিজ বাবু দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, ২০০২ সাল থেকে ছাত্র রাজনীতির মধ্য দিয়ে রাজপথে নেমেছিলাম, আজও আছি। দলের দুঃসময়ে আমি রাজপথে থেকে দলের ডাকে সাড়া দিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করেছি, দলের ডাকে সাড়া দিয়ে জীবন দিতেও প্রস্তুত ছিলাম। তিনি আরো বলেন, আমি সব সময় মানুষের জন্য কাজ করি। নিজের ব্যক্তিগত অর্থ দিয়ে সব অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করেছি। করোনা কালীন সময়ে ত্রান সহায়তা নিয়ে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছি। তাছাড়াও বিভিন্ন সময়ে যেকোনো সমস্যায় মানুষে পাশে থেকেছি। প্রধানমন্ত্রীর তরুনদের প্রতি যে ভালবাসা এবং আগামীর নেতৃত্ব তৈরীর জন্য তরুনদেরকে যে গুরুত্ব দিয়েছেন আমি আশা করি দল আমাকে মনোনয়ন দিবেন। সেই সাথে দলীয় মনোনয়ন পেলে বিজয়ী হয়ে সুন্দর একটি ইউনিয়ন গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা যুবলীগের সদস্য নোমান উসমান রিচি বলেন, আমি কলেজ জীবন থেকে ছাত্রলীগের সাথে সম্পৃক্ত। তিনি আরো বলেন আমি একজন খেলোয়ার, আমার পিতা মাতা জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে পুরুস্কার প্রাপ্ত। আধুনিক ও একটি সুন্দর সমাজ গড়তে সুস্থ একটি সমাজ লাগে, আর খেলাধুলার মাধ্যমে সুস্থ জাতি গঠন সম্ভব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তরুনদের প্রতি যে গুরুত্বারোপ করেছেন সেই দিক থেকে আমি আশাবাদী আমি দলীয় মনোনয়ন পাবো। সেই সাথে তিনি দলীয় মনোনয়ন পেলে প্রধানমন্ত্রীর গ্রামকে শহর গড়ার অঙ্গীকার বাস্তবায়ন, সমাজের অবহেলিত মানুষের পাশে থেকে সুস্থ সুন্দর ও খেলাধুলা উপযোগী একটি ইউনিয়ন গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here