ময়মনসিংহে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ কুয়েটের এক শিক্ষার্থী নিহত অপর তিনজন হাসপাতালে

0
280

ময়মনসিংহের ভালুকায় আর এস টাওয়ারের একটি ছয় তালা ভবনের ৩য় তালায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে কুয়েটের শেষ বর্ষের মেধাবী এক শিক্ষার্থী নিহত এবং রুমের মধ্যের থাকা অপর তিন শিক্ষার্থীকে গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় পুলিশ ও র‌্যাবের উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত সংগ্রহ করেছেন।
বিশ^বিদ্যালয় সুত্রে জানাগেছে, কুয়েটের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শেষ বর্ষের মেধাবী ছাত্র মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, মোঃ শাহীন মিয়া, মোঃ হাফিজুর রহমান ও দিপ্ত সরকার গত ১০ মার্চ ২০১৮ তারিখ থেকে ৫ এপ্রিল ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত স্কয়ার গ্রæপের একটি টেক্সটাইল মিলে এক মাসের ইন্ডাস্ট্রিয়াল এটাচমেন্টের (ইন্টার্নি) জন্য ময়মনসিংহের ভালুকার মাষ্টার বাড়ি এলাকার একটি ৬ তলা ভবনের ৩য় তলায় অবস্থান করছিল। ঘটনাক্রমে গত ২৪ মার্চ রাত ১টায় রুমের মধ্যে থাকা গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলে মোঃ তৌহিদুল ইসলাম নিহত হয়। নিহত তৌহিদুলের বাড়ি বগুড়া জেলায়। এ সময় এ্ই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে একই বর্ষের ছাত্র সিরাজগঞ্জ জেলায় মোঃ শাহীন মিয়া, নওঁগা জেলার মোঃ হাফিজুর রহমান ও মাগুরা জেলার দিপ্ত সরকার। আহতদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদেরকে ঢাকা মেডিকেলের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়েছে। দূর্ঘটনার খবর শোনার পরপর আহদের দেখতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে ঢাকার উদ্যেশ্যে রওনা হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধানসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক বর্তমানে হাসপাতালে অবস্থান করে চিকিৎসার সবধরণের সহযোগিতা নিশ্চিত করছেন।
বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শুভ ও তমল জানান, একজন ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছে বাকী তিনজনের একজনের শরীরে ৮৩শতাংশ এবং অপর দু’জনের ৫০শতাংশ পুড়ে গেছে। এই ঘটনায় বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী সহ সকলে গভীর ভাবে শোকাহত ও মর্মাহত। ঘটনায় বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে সংশ্লিষ্ট বিভাগসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সমগ্র বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার। খবর শোনার পরই কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে হতাহতদের সহপাঠীরা, শোকে অনেকে বাকরুদ্ধ।
হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর। এক শোক বিবৃতিতে কুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলর নিহতের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও আহতদের আশু সুস্থতা কামনা করেন এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।