মোংলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শ্রমিকের মৃত্য, ক্ষতিপূরণ দাবী

0
550
dav

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি:
মোংলায় মাটি কাটার কাজে নিয়োজিত শ্রমিককে দিয়ে জোর পূর্বক পানি উত্তোলনের মটরের বৈদ্যুতিক তারের সংযোগ দিতে বাধ্য করায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে দিন মজুর এক যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। সোমবার বিকেলে শহরের শেহলাবুনিয়ার রাজ্জাকের মোড় এলাকার মিজানুর রহমানের বাড়ীতে কাজ করার সময় এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী জানায়, পশ্চিম শেহলাবুনিয়ার মজিবর সরদারের জামাই মো: নান্টু মল্লিক (৩০) গত কয়েকদিন ধরে রাজ্জাক সড়কের বাসিন্দা ও মোহসিনিয়া আলিম মাদ্রাসার শরীর চর্চা শিক্ষক মো: মিজানুর রহমান মিজানের বাড়ীতে মাটি কাটার কাজ করে আসছিল। সোমবার বিকেলে ওই বাড়ীতে মাটি কাটার কাজ করার সময় বাড়ীর লোকজন নান্টুকে মাটির কাজ ফেলে রেখে পানি উঠানোর মটরে বৈদ্যুতিক সংযোগ দিতে বলে। এ সময় নান্টু বৈদ্যুতিক কাজ জানেন না বলার পরও ধমক দিয়ে জোর পূর্বকভাবে তাকে মটরের লাইন দিতে বলে বাড়ীর কর্তা ব্যক্তিরা। ধমকের কারণে নান্টু পানির মধ্যে থাকা মটরে লাইন দিতে গেলে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সেন্ট পলস হাসপাতালে নেয়া হলে সেখান থেকে তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। এরপর তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: জীবিতেষ বিশ্বাস তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ডা: জীবিতেষ, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার অন্তত আধ ঘন্টা আগেই বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট নান্টুর মৃত্যু হয়েছে।
নান্টুর স্বজনেরা অভিযোগ করে বলেন, নান্টু মুলত মাটি কাটার কাজ করতো। ওই বাড়ীর লোকজন তাকে দিয়ে জোর করে বিদ্যুতের কাজ করানোতেই এ মর্মান্তিরক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। বাড়ীর মালিক জোর করে বৈদ্যুতিক কাজ করানোতেই নান্টুর মৃত্যু হয়েছে দাবী করে সহকর্মী শ্রমিকেরা নিহতের পরিবারের জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরণ আদায়ের দাবী জানিয়েছেন। নান্টু খুলনার পাইকগাছা থানার বেতবুনিয়া গ্রামের বালা মল্লিকের ছেলে। নান্টুর রোমানা নামের সাড়ে ৩ বছরের একটি শিশু কন্যা রয়েছে।
এ বিষয়ে বাড়ীর মালিক মিজান বলেন, নান্টু মুলত মাটির কাজ করছিল, তাকে পানিতে থাকা মটরের লাইন দিতে বললে এ দুর্ঘটনা ঘটে। #