মোংলায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে নাশকতার মামলা, আতংক গ্রেফতারের

0
515

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি, খুলনাটাইমস:
মোংলায় পৌর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রমিক নেতা মাহবুবুর রহমান মানিক এবং যুবদলের ৪ নেতা-কর্মীসহ অজ্ঞাত আরো ১০/১৫ জনের নামে সরকারকে উৎখাতে নাশকতার পরিকল্পনা করার অভিযোগে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মোংলা থানার এস,আই গৌতম হালদার বাদী হয়ে গত শনিবার (১৩ জানুয়ারী) মামলাটি দায়ের করেন।
পুলিশ সূত্র জানায়, গত ১৩ জানুয়ারী রাতে মোংলা পৌরসভাধীন ৯ নং ওয়ার্ডস্থ কেওড়াতলার মোংলা টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেস ম্যানেজম্যান্ট কলেজের বারান্দায় ২০ দলীয় সমর্থিত বিএনপি, জামায়াত, শিবির ও ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা দেশকে অস্থিতিশীল করাসহ নাশকতা মুলক কর্মকান্ড করার লক্ষে গোপন বৈঠক করছিল। এ সময় পুলিশ ধাওয়া দিলে বৈঠককারীরা লাঠি সোটা ও ধারালো অস্ত্র ফেলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।
এতে বিএনপি’র মোংলা পৌর শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রমিক নেতা মাহবুবুর রহমান মানিক, ছাত্র দলের মোংলা থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ কাশেম, যুবদল নেতা মোঃ বাপ্পা ও ফয়সাল আহম্মদসহ আরো ১০/১৫ জন অজ্ঞাতকে আসামি করা হয়েছে।
এদিকে এ মামলা দায়েরকে কেন্দ্র করে মোংলা বিএনপি ও অঙ্গ দলের নেতা কর্মীদের মাঝে গ্রেফতার আতংক বিরাজ করছে। ইতিমধ্যে নেতা কর্মীরা গ্রেফতার এড়াতে গা ঢাকা দিয়ে আত্মগোপনে চলে গেছেন।
অপরদিকে এ মামলাকে মিথ্যা ষড়যন্ত্র ও উদ্দেশ্যমুলক দাবি করে বাগেরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি এম, এ সালাম ও সহ-সভাপতি ড. ফরিদুল ইসলাম পৃথক বিবৃতি প্রদাণ করেছেন। বিবৃতিতে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা, ক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে মামলাটি প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়েছে।
বিবৃতিতে জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ড. ফরিদুল ইসলাম বলেন, মোংলা ও রামপালে বিএনপির সাধারণ নেতা-কর্মীদের হয়রানী করার জন্য মিথ্যা মামলায় প্রতিনিয়ত আটক করা হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকায় মোংলায় এই নাশকতার মামলা করা হয়েছে। আগামীতে সাধারণ নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করে এই মামলায় আটক দেখিয়ে জেলে ঢুকানোর পায়তারা করছে। এ ধরণের মিথ্যা ও হয়রানীমুলক মামলা থেকে সরে আসার জন্য সরকারের প্রতি আহবাণ জানাচ্ছি। #