মার্কিন গুপ্তচর বিমান থেকে পাকিস্তান সীমান্তে ড্রোন হামলা

0
372

বিদেশ ডেস্ক :
পাকিস্তান-আফগান সীমান্তে একটি মার্কিন গুপ্তচর বিমান থেকে ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে। পাকিস্তানের দাফতরিক সূত্রকে উদ্ধৃত করে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, হামলায় অন্তত একজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

ট্রাম্পের টুইট আর নিরাপত্তা সহযোগিতা স্থগিতের পর পাকিস্তানের পক্ষ থেকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দেয়। সর্বশেষ পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খুররাম দস্তগীর খান যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় বন্ধ করে দেওয়ার অনানুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন। গতকাল তিনি পরোক্ষভাবে আফগান যুদ্ধের রসদ সরবরাহে মাশুল ধার্যের পারার ইঙ্গিত দেন। যুক্তরাষ্ট্রকে বেঈমান বলতেও ছাড়েনি দেশটির সেনাবাহিনী। এমন সময় মার্কিন উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পাকিস্তান সফরে এসে বলেছেন, ‘অভিন্ন স্বার্থ’র জায়গা থেকে নতুন সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার কথা। তবে ইসলামাবাদ শুরু থেকেই বলে আসছে, পাকিস্তানকে তারা আফগান যুদ্ধের ঘাঁটি হতে দেবে না। দুই দেশের চলমান উত্তেজনার মধ্যেই নতুন করে এই ড্রোন হামলার খবর পাওয়া গেল।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, বুধবার স্থানীয়রা পাকিস্তান-আফগান সীমান্তের বাদশাহ কোট এলাকায় মার্কিন গুপ্তচর বিমানটি দেখতে পান। ওই এলাকার একটি বাড়ির কাছাকাছি বিমান থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ফেলা হয়। এতে খালিদ নামের এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়। পাকিস্তানি কর্মকর্তারা বলছেন, ওই ব্যক্তি ‘আফগান জঙ্গি’।

২০১১ সালে পাকিস্তানের সামরিক শহর অ্যাবোটাবাদে যুক্তরাষ্ট্রের গোপন অভিযানে আল কায়েদার শীর্ষ নেতা ওসামা বিন লাদেন নিহত হন। গত বছর মে মাসে আফগান সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের প্রত্যন্ত এলাকায় ড্রোন হামলায় তালেবান প্রধান মোল্লা আখতার মনসুর নিহত হন। ওই হামলার ব্যাপারে পাকিস্তান অবগত ছিল না। মার্কিন ড্রোন হামলায় পাকিস্তানের বহু বেসামরিক মানুষ হতাহত হয়েছেন। পাকিস্তান যখন ‘জাতীয় স্বার্থ’ ক্ষুণ্ন করে সম্পর্ক রক্ষায় রাজি না থাকার কথা বলছে, ঠিক তখন নতুন ড্রোন হামলার খবর এলো।