মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার আসামি কক্সবাজারের সালামতের মৃত্যু

0
171

টাইমস ডেস্ক:
একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গ্রেপ্তার কক্সবাজারের সালামত উল্লাহ খান মারা গেছেন। গতকাল মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। বিষয়টি নিশ্চিত করেন প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম। তাকে চিকিৎসার জন্য কারাগার থেকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে আনা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার পালোয়ান। এর আগে ২০১৮ সালে তার জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছিলেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। এরপর গত ২৯ অক্টোবর আবারো ট্রাইব্যুনালে জামিন আবেদন করেন। গতকাল মঙ্গলবার ওই জামিন আবেদনের ওপর শুনানি হওয়ার কথা ছিল। আদালতে আসামির পক্ষে মামলা পরিচালনা করতেন অ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার পালোয়ান। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করতেন প্রসিকিউটর রানা দাশ গুপ্ত, তার সঙ্গে ছিলেন প্রসিকিউটর রেজিয়া পারভীন চমন। এই মামলার তদন্ত শেষে চূড়ান্ত প্রতিবেদনে আসামিদের বির”দ্ধে হত্যা, নারী নির্যাতন, অগ্নিসংযোগ, ধর্মান্তর ও দেশান্তরকরণসহ ১৩টি অভিযোগ আনে তদন্ত সংস্থা। মামলায় এর আগে আসামি ছিল ১৯ জন। তবে গ্রেপ্তার একজন মারা যাওয়ায় মোট আসামি হন ১৮ জন। পরে এই মামলায় নতুন করে আরও একজন আসামি অন্তর্ভুক্ত করায় মোট আসামির সংখ্যা দাঁড়ায় ১৯ জন। এখন আরও একজন মারা গেলেন। সালামত উল্লাহ খান ছাড়া এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন-মৌলভী জাকারিয়া শিকদার, মো. রশিদ মিয়া বিএ, অলি আহমদ, মো. জালাল উদ্দিন, মোলভী নুর”ল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সাবুল, মমতাজ আহম্মদ, হাবিবুর রহমান, মৌলভী আমজাদ আলী, মৌলভী আবদুল মজিদ, বাদশা মিয়া, ওসমান গণি, আবদুল শুক্কুর, মৌলভী সামসুদ্দোহা, মো. জাকারিয়া, মো. জিন্নাহ ওরফে জিন্নাত আলী, মৌলভী জালাল ও আবদুল আজিজ। এদের মধ্যে সালামত উল্লাহ খানসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তারা হলেন-সালামত উল্লাহ খান, মো. রশিদ মিয়া বিএ, মৌলভী নুর”ল ইসলাম, বাদশা মিয়া, মৌলভী ওসমান গনি, মৌলভী শামসুদ্দোহা, মো.জিন্নাত আলী। তাদের মধ্যে মোলভী সামসুদ্দোহা ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার মারা গেলেন অপর আসামি সালামত উল্লাহ খান।