মাদকদের বিরুদ্ধে সামাজিকভাবে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে : বিভাগীয় কমিশনার

0
370

নিজস্ব প্রতিবেদক:
খুলনায় আজ মঙ্গলবার (২৬ জুন) নানা আয়োজনে পালিত হয় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস-২০১৮। দিবসটি উপলক্ষে সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। খুলনা জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য ‘আগে শুনুন: শিশু ও যুবাদের প্রতি মনোযোগ দেয়াই তাদের নিরাপদ বেড়ে উঠার প্রথম পদক্ষেপ’।
প্রধান অতিথি বিভাগীয় কমিশনার বলেন, মাদকদের বিরুদ্ধে সামাজিকভাবে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। দেশের ৬৫ লাখ মানুষ কোন না কোন ভাবে মাদকে আসক্ত। তাদের সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে আনতে সকলকে প্রয়াস চালাতে হবে। যে কোন ভাল কাজের জন্য এক হওয়া দরকার। তিনি বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে বর্তমান সরকার যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। এ যুদ্ধে সম্মিলিতভাবে শামিল হতে হবে। সকল কাজ সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। পরিবার ও সমাজ থেকেই মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং পরিবারিক বন্ধন দৃঢ় করতে হবে। মাদকের পাশাপশি ইন্টারনেট আসক্তির বিরুদ্ধেও অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ কমিশনার মোঃ হুমায়ুন কবির, অতিরিক্ত ডিআইজি একেএম নাহিদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ, সিভিল সার্জন ডাঃ এস এম আব্দুর রাজ্জাক, জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ রুহুল আমীন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মহানগর ইউনিটের কমান্ডার অধ্যাপক মোঃ আলমগীর কবির এবং জেলা কমান্ডার সরদার মাহাবুবার রহমান। খুলনার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান এতে সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত জানান খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামান। শুভেচ্ছা জানান খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি ফারুক আহমেদ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মানসিক রোগ বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডাঃ সৈয়দ মাহবুবে কিবরিয়া।
আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। এর আগে শহীদ হাদিস পার্ক থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় এসে শেষ হয়। এতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, এনজিও প্রতিনিধি সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
এর আগে ২৬ জুন মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় এর উপ-পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামানের নেতৃত্বে পরিদর্শক হাওলাদার মোঃ সিরাজুল ইসলাম, পারভীন আক্তার, মোঃ সাইফুর রহমান, আল মামুন এবং সিপাইগণ শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে লিফলেট,পোস্টার, মাইকিং ও স্টিকার বিতরণ করেন। ২৩ জুন সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিভিন্ন মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রসমূহ কর্তৃক স্ব-স্ব কার্যালয়ে তথ্য কেন্দ্র স্থাপন করা হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় শহীদ হাদিস পার্ক থেকে বেসরকারী নিরাময় কেন্দ্র ও এনজিওদের সহযোগিতায় এক বর্ণাঢ্য রিক্সা র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‌্যালির মাধ্যমে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মাদকবিরোধী শ্লোগান প্রচার করেন। র‌্যালিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন করেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ ফারুক হোসেন। এর আগে গত ২০ জুন দিবসটির তাৎপর্য্য তুলে ধরে শিশু কিশোরদের মধ্যে বাংলাদেশ শিশু একাডেমীতে ০৪ টি গ্রুপে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার এবং বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছেলে মেয়েদের মধ্যে “ক ও খ” গ্রুপে দইটি বিষয়ে “মাদক প্রতিরোধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা” এবং “মাদক,সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ উন্নয়নের অন্তরায়” এর উপর রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান,কারাগার ও মসজিদে মুসল্লীদের মাঝে জুম্মার ক্ষুদবার পূর্বে মাদকবিরোধী গণসচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহন করেন। এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে সকল উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় একযোগে মাদকবিরোধী বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় সকল উপজেলায় রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় এবং বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।