মাইলফলকের ম্যাচে জ্বলে উঠবেন সুয়ারেজ?

0
340

স্পোর্টস ডেস্ক:
বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে মাঠে নামছে উরুগুয়ে। জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করলেও দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দলটির খেলার সেই বন্ধনটাই চোখে পড়েনি।

মিশরের বিপক্ষে জয় পেলেও একমাত্র গোলটি উরুগুয়ে পেয়েছিল ম্যাচের ৮৯ মিনিটে। ফলে গ্রুপের দুর্বল দল সৌদির বিরুদ্ধে ম্যাচ হলেও একটু চিন্তিত উরুগুয়ে টিম ম্যানেজমেন্ট। আয়োজক দেশ রাশিয়া দুই ম্যাচ থেকে ছয় পয়েন্ট নিয়ে এরমধ্যেই শেষ ষোলোর পথে পা বাড়িয়ে রেখেছে। ফলে এই ম্যাচে যদি উরুগুয়ে জিততে পারে তাহলে তারাও স্বাগতিকদের সঙ্গে পৌঁছে যাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে।

প্রথম ম্যাচে ক্রিশ্চিয়ান রডরিগেজ এবং কার্লোস স্যানচেজকে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে নামার পরেই বদলে গিয়েছিল লাতিন দেশটির খেলা। তাই আজ শুরু থেকেই এই দুই জনকে সুযোগ দিতে চাইছেন উরুগুয়ের কোচ অস্কার তাবারেজ।

তবে কী তরুণ ফুটবলারদের ওপর ভরসা রাখতে পারছেন না উরুগুয়ের বস? এই তত্ত্বকে সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়ে অস্কার বলেন, এখানে অভিজ্ঞ বা তারুণ্যের বিষয় নয়। আমার জ্ঞান বলে দলের পক্ষে যা ভালো সেই ফরমেশনে যারা ফিট করে তাদেরকেই খেলানো প্রয়োজন এবং আমরা সেটাই করছি।

এই ম্যাচে দেশের জার্সিতে নিজের ১০৭ নম্বর ম্যাচটি খেলবেন রডরিগেজ। প্যারিস সেন্ট জামের্ই তারকা এডিনসন কাভানি নামছেন নিজের ১০২তম ম্যাচে। দলের হয়ে গোলরক্ষক ফার্নান্দো মুসলেরা খেলবেন ৯৯ নম্বর ম্যাচটি। অন্যদিকে লা সেলেস্তেদের হয়ে এদিনই শততম ম্যাচটি খেলবেন লুইস সুয়ারেজ।

প্রথম ম্যাচে জ্বলে না উঠতে পারলেও ক্যারিয়ারের মাইলফলকের ম্যাচে নিজের সেরাটাই দিতে চাবেন স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার এই ফরোয়ার্ড। উরুগুয়ে শিবিরের খবর, দলে কোনও চোট আঘাতের সমস্যা নেই। গোটা দলই রয়েছে ফিট।

সুয়ারেজদের কোচ বলেন, আমার নিজের দলের প্রতি অনেক ভরসা ও বিশ্বাস রয়েছে। ওদের অভিজ্ঞতা প্রচুর।

এদিকে কঠিন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে নামার আগে বেশ ছন্নছাড়া অবস্থা সৌদি আরবের। গোটা দল একই সঙ্গে অনুশীলন করলেও ফুটবলারদের মনোবলটাই যেন ভেঙে গেছে। রাশিয়ার কাছে পাঁচ গোল হজম করার পর অনেকটাই অসহায় দেখাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির ফুটবলারদের শরীরী ভাষা।

যদিও এই দলকেই নিজের ভোকাল টনিকে চাঙ্গা করে তাদের মধ্যে থেকে সেরা নিয়ে আসতে বদ্ধপরিকর আর্জেন্টাইন কোচ পিজ্জি।

সৌদি টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রে খবর, এই ম্যাচে প্রথম একাদশে একাধিক বদল আনতে পারেন কোচ। বিশেষ করে ডিফেন্স এবং মিডফিল্ডে বদল আসার সম্ভাবনা বেশি।

তবে দলের জন্য সবচেয়ে ভালো খবর হলো কোনও চোট আঘাতের সমস্যা নেই। সেরা ফুটবলারদেরই সার্ভিস পাবে তারা।

ম্যাচের আগের দিন সৌদির অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার তাইসির আল জাসিম বলেন, টিম হোটেলে পৌঁছানোর পরই আমরা ম্যাচের ফল ভুলে গিয়েছিলাম। আমরা এই ম্যাচে নতুন ভাবে মাঠে নামবো।

একটা বিষয়ে নিশ্চিত যে, এই ম্যাচ থেকে যদি সৌদি পয়েন্ট পেতে চায়, তাহলে দলের ফুটবলারদের অভাবনীয় পরিবর্তন প্রয়োজন। কারণ রাশিয়ার বিপক্ষে যে ফুটবলের নমুনা তারা রেখেছিল, সেই ফুটবল যদি এই ম্যাচে খেলে, তাহলে চাপ বাড়বে এশিয়ার দেশটির ওপর। কারণ বিশ্বকাপে টিকে থাকতে হলে এই ম্যাচ জিততেই হবে সৌদিকে।