মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক অনিয়মিত পত্রিকা বিব্রতকর ও অতিরঞ্জিত সংবাদ প্রকাশ করে বিভ্রান্তি ছড়ায়

0
370

নিজস্ব প্রতিবেদক:
খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেছেন, ‘খুলনা জেলায় ডিক্লারেশন প্রাপ্ত দৈনিক পত্রিকার সংখ্যা ২৩টি, সাপ্তাহিক পত্রিকা ২৫টি, পাক্ষিক পত্রিকা চারটি, মাসিক নয়টি, ত্রৈমাসিক পত্রিকা একটি। এর মধ্যে অনেক পত্রিকা অনিয়মিতভাবে প্রকাশিত হয়। অপেশাদার মনোভাব সম্পন্ন এসব অনিয়মিত পত্রিকা অনেক সময় বিব্রতকর ও অতিরঞ্জিত সংবাদ প্রকাশ করে জনসাধারণের মাঝে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অপপ্রয়াস চালায়।’
মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে খুলনার স্থানীয় পত্রিকার প্রকাশক, সম্পাদক ও জাতীয় পত্রিকার ব্যুরো প্রধানসহ স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
জেলা প্রশাসক আরও বলেন, দেশ ও সমাজের কল্যাণে বাল্যবিবাহ, মাদক ও ইভটিজিং এর ন্যায় সামাজিক অপরাধের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সমাজকে সচেতন থাকতে হবে। এসময় ডেঙ্গু প্রতিরোধে খুলনায় গৃহীত কার্যক্রম তুলে ধরেন তিনি। খুলনায় ময়ূর ও ভৈরব নদের তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও মাদকের করাল গ্রাস হতে তরুণ প্রজন্মকে রক্ষায় চলমান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে গণমাধ্যমকর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
তিনি আরও জানান, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহের সার্ভেয়ার দ্বারা সীমানা নির্ধারণ করেই খুলনায় চলমান অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।
মতবিনিময় সভায় খুলনার স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক ইশরাত জাহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমান, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি বেগম ফেরদৌসী আলী, দৈনিক অনির্বাণ এর সম্পাদক অধ্যক্ষ আলী আহমেদ, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম হাবিব, সাধারণ সম্পাদক সাহেব আলীসহ স্থানীয় পত্রিকার প্রকাশক, সম্পাদক এবং স্থানীয়, জাতীয় পত্রিকার সাংবাদিক ও টেলিভিশন চ্যালেনসমূহের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।