ভদ্রা নদী খননে ভুমিহীনদের ক্ষতিপুরণ ও পুনর্বাসনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

0
357

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি:
ভদ্রা নদী খননে ভুমিহীনদের ক্ষতিপুরণ ও পুনর্বাসনের দাবীতে শনিবার সকালে ডুমুরিয়া উপজেলার শোভনা-ভদ্রদিয়া সীমান্তবর্তি চরভরাটি নদীর উপর এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিন শতাধিক ভুমিহীনদের উপস্থিতিতে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যপাঠ করেন উপজেলার পাচপোতা গ্রামের ভুমিহীন নজরুল ইসলাম ফকির।
তিনি বলেন, এক সময়ের খর¯্রােতা ভদ্রা নদী প্রাকৃতিকভাবে পলিভরাট হয়ে সমতল ভুমিতে পরিণত হয়। এরপর আমরা সরকার কর্তৃক ঘোষনানুযায়ী নিয়মতান্ত্রিকভাবে বন্দোবস্ত নিয়ে বিগত ৩০/৩২ বছর যাবত উক্ত জমিতে বসতবাড়ি স্থাপন, কৃষি ফসল উৎপাদন ও মৎস্য চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। আমাদের একমাত্র সম্বল বন্দোবস্তকৃত এজমিতে পরিবার পরিজন নিয়ে কোন রকমে মাথা গোজার ঠাই করে নিয়েছি। অনেকে বন্দোবস্তকৃত জমি ব্যাংকে মর্গেজ রেখে ঋণও নিয়েছে। সম্প্রতি আমরা খবর পাই সরকার নদীটি খননের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। ইতোমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ড আমাদেরকে ১০/১২দিনের মধ্যে স্থাপনা সরিয়ে নিতে বলেছে।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, এ নদী খনন করলে আমরা অপূরনীয় ক্ষতির সম্মুখিন হবো। পরিবার পরিজন নিয়ে রাস্তায় ওঠা ছাড়া আর কোন উপায় থাকবেনা। সবমিলে সরকারের প্রতি ভুমিহীনদের পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণের দাবী জানান ভুমিহীনরা। এসময়ে ভুমিহীনদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শোভনা গ্রামের ফজলুর রহমান খান, ছাত্তার সরদার, জলিল খান, হামিদ বিশ্বাস, খাদিজা বেগম, ভদ্রদিয়া গ্রামের কামরুল মোড়ল, পলাশ দাস, পাচপোতা গ্রামের ছাত্তার শেখসহ প্রায় তিন শতাধিক নারী-পুরুষ।#