বিশ্বকাপের শেষ দুই ম্যাচে দেখা যাবে না সুন্দরীদের

0
276

স্পোর্টস ডেস্ক:
বিশ্বকাপের ২১তম আসরের আর বাকি দু’ম্যাচ। আগামী রোববার মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের মধ্য দিয়ে পর্দা নামবে বিশ্বকাপের। অনেক হাসি-কান্না দিয়ে ভরপুর বিশ্বকাপের এ মঞ্চ। খেলার সময় পুরো স্টেডিয়াম জুড়ে উৎসব মুখর পরিবেশ পরিলক্ষিত হয়।

মাঠে ২২জন খেললেও তাদের সমর্থন জোগাতে গ্যালারিতে উপস্থিত থাকেন নারী-পুরুষ নির্বিশেষে হাজার হাজার সমর্থক। প্রিয় দলের প্রিয় খেলোয়াড় গোল করলে উল্লাসে ফেটে পড়েন তারা। আর ক্যামেরা খুঁজে বেড়ায় সুন্দরী ললনাদের। এতে টিভি সেটের বাইরে থাকা দর্শকরা পায় উৎসাহ-উদ্দীপনা। কিন্তু এবার যেন এর রাশ টেনে ধরলো ফিফা। লাস্যময়ী সুন্দরী ললনাদের চোখ ধাঁধানো রূপ আর দেখা যাবে না টিভিতে।

গ্যালারিতে থাকা যৌন আবেদনময়ী সুন্দরীদের জুম করে বেশি বেশি টিভিতে দেখানোর ব্যাপারে আপত্তি তুলেছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। ফুটবলে যৌনতা মোকাবেলা করার প্রচেষ্টার অংশ হিসাবে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফিফার স্থায়ীত্ব ও বৈচিত্র্য প্রধান ফেডেরিকো অ্যাডিয়েচি। তবে এ নিয়ম কেবল চুক্তিবদ্ধ ব্রডকাস্টারদের ক্ষেত্রেই বলবৎ হবে। খবর আরটি নিউজের।

আদিয়েচি বলেন, আমরা ব্রডকাস্টারদের বলেছি- তারা যেন এটি না করে। তাদের এ ব্যাপারে সতর্ক করেছি। নারী ও বিশ্বকাপের সম্মান-মর্যাদা সমুন্নত রাখতেই এ উদ্যোগ।

বুধবার রাতে সংবাদ সম্মেলনে ফিফা জানায়, বিশ্বকাপের সময় যৌন হয়রানি সংক্রান্ত বিষয়গুলি উত্থাপিত হওয়ার কারণে গ্যালারিতে থাকা নারী ভক্তদের আরও সম্মানজনক ছবি পেতে চায় তারা।

ইউরোপে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে ফুটবল এমন স্লোগানে ফিফার সঙ্গে ভক্তদের আচার ব্যবহার নিয়ে কাজ করা সংস্থা ফেয়ার (এফএআই) জানিয়েছে, চলতি বিশ্বকাপে নারীদের হয়রানির ৩০টির বেশি অভিযোগ পেয়েছে তারা।কিন্তু প্রকৃত সংখ্যাটা তার ১০ গুণেরও বেশি।

বিশ্বকাপের আগে রাশিয়ায় সমকামিতা ও রেসিজম নিয়ে চিন্তিত ছিল ফিফা। কিন্তু টুর্নামেন্ট চলাকালীন নারীদের ওপর যৌন সহিংসতা ফিফার নতুন চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। উন্মত্ত পুরুষ সমর্থকরা নারী সমর্থকদের সঙ্গে প্রায়শই অপ্রীতিকর আচরণ করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকি লাইভ সংবাদ প্রচারকালে নারী সাংবাদিককে চুমু খাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে রাশিয়ায়। সব মিলিয়ে নারীদের যৌন হেনস্থা শিকার বন্ধে নতুন এ উদ্যোগ নিয়েছে ফিফা।