বিলুপ্ত প্রজাতির কচ্ছপ দিল ৩২টি বাচ্চা

0
750

আজিজুর রহমান, খুলনাটাইমস :
বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রাণি প্রজনন কেন্দ্রের বিলুপ্ত প্রজাতির কচ্ছপ ‘বাটাগুর বাস্কা’র দেওয়া ডিম থেকে ৩২টি বাচ্চা ফুটেছে। বর্তমানে বাচ্চাগুলো সুস্থ্য ও সবল রয়েছে বলে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সুন্দরবন বিভাগ।

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল পর্যটন ও বন্যপ্রাণি প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আজাদ কবির জানান, গত ১১ মার্চ একটি কচ্ছপ প্রজনন কেন্দ্রে ৩২টি ডিম দেয়। এরপর ডিমগুলো সংগ্রহ করে রাখা হয় প্রকল্পের ইনকিউভেশনে নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় ফুটানোর জন্য। এদিকে ৬৫দিন ইনকিউভেশনের মধ্যে থাকার পর বৃহস্পতিবার (১৬ মে) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ওই ডিম থেকে ২১টি বাচ্চা ফুটে বের হয়। বাকি ডিমগুলো থেকে শুক্রবারে (১৭ মে) ১১টি বাচ্চা ফুটে বের হয়েছে।

সুন্দরবনে বিলুপ্ত প্রজাতির কচ্ছপ ‘বাটাগুর বাস্কা’ রক্ষায় ২০১৪ সালে করমজল বন্যপ্রাণি প্রজনন কেন্দ্রের প্রকল্পটি চালু হওয়ার পর ২০১৭ সাল থেকে ডিম দিতে শুরু করে প্রজনন কেন্দ্রের কচ্ছপগুলো। শুরু থেকেই ১০টি কচ্ছপের মধ্যে ছয়টি পুরুষ ও চারটি নারী কচ্ছপ ছিল। সর্বপ্রথম ৬২টি ডিম থেকে বাচ্চা হয় ৫৭টি। আর ২০১৮ সালে ৪৬টি ডিম থেকে বাচ্চা হয় ২২টি। তৃতীয় দফায় ২০১৯ সালের ১১ মার্চ দেয়া ৩২টি ডিম থেকে ৩২টি বাচ্চা ফুটে বের হয়েছে। এ প্রকল্পে ছোট বড় মিলিয়ে ১৮৩টি কচ্ছপের সঙ্গে যোগ হয়েছে সদ্যজন্ম নেওয়া ৩২টি বাচ্চা। এ নিয়ে করমজলে এখন পর্যন্ত মোট কচ্ছপের সংখ্যা ২১৫টিতে দাঁড়িয়েছে।

কচ্ছপ প্রজনন প্রকল্পের ম্যানেজার আ. রব মুঠোফোনে খুলনাটাইমসকে বলেন, ডিম থেকে সদ্য ফুটে বের হওয়া বাচ্চাগুলোর শারীরিক অবস্থা খুবই ভালো। তবে এরমধ্যে একটি বাচ্চা একটু দুর্বল রয়েছে। বাচ্চাগুলোর শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে বিকেলেই প্রকল্পের এক নম্বর হ্যাচারীতে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।