বাজাজ পালসার N160, ডুয়েল চ্যানেল এবিএস ও ফুয়েল ইঞ্জেকশন এখন বাংলাদেশে!

0
7

ঢাকা অফিসঃ বাংলাদেশের বাইকপ্রেমীদের স্পোর্টস বাইক শুনলে প্রথমেই মাথায় আসে পালসারের কথা। পালসার বাংলাদেশে স্পোর্টস বাইকের সূচনা থেকে একে বিপ্লবে পরিণত করেছে এবং বাইকপ্রেমীদের কাছে পরিণত হয়েছে সর্বাধিক জনপ্রিয় স্পোর্টস বাইক হিসেবে।

দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে বাইকপ্রেমীদের কাছে পালসার মানেই পাওয়ার। পাওয়ারের সাথে পালসার এখন কাজ করতে চায় নিয়ন্ত্রণ এবং নির্ভুলতার সাথে বাইক চালাতে সবাইকে উৎসাহিত করতে। এটি মাথায় রেখে পালসার নিয়ে আসছে বাজাজ পালসার এন-১৬০, বাংলাদেশের প্রথম ১৬০ সিসি মোটরসাইকেল যার ডুয়েল-চ্যানেল abs আছে।

নতুন পালসার এন১৬০-এ আছে ডুয়েল-চ্যানেল abs Led প্রজেক্টর হেডল্যাম্প এবং আন্ডারবেলি এগজস্ট, যা বাংলাদেশের মোটরসাইকেলের ১৬০ সিসি সেগমেন্টের মধ্যে প্রথম। এর 37 mm ফ্রন্ট সাসপেনশন এবং 300 mm ডিস্ক ব্রেকও এই সেগমেন্টে সেরা।

টুইন-চ্যানেল abs ফিচারটি চাকা লক না হওয়া/আটকে যাওয়া এবং/বা যেকোনো রাস্তায় চাকা যেন পিছলে না যায় তা নিয়ে কাজ করে। 37 mm টেলিস্কোপিক ফ্রন্ট ফর্কসহ ফ্রন্ট সাসপেনশন দুর্দান্তভাবে গতি বাড়াতে ও থামাতে সাহায্য করে। Pulsar N170 -এর নতুন Dts র প্রযুক্তির ইঞ্জিন, এই ক্যাটাগরিতে প্রথম পেটেন্ট করা যা 16 ps (11.7 kw) পাওয়ার এবং 14.65 Nm টর্ক প্রদান করে এবং চালককে দেয় নতুন পাওয়ার।

নতুন পালসার N160 দেখতে এতটাই আকর্ষণীয় যে সবাই ফিরে তাকাবে। দুই মেটাল রঙের আবহে তৈরি এর ভিন্নধর্মী ইন্টারপ্লে যেমন প্রিমিয়াম লুক দিয়েছে, তেমনি এর ইনফিনিটি ডিসপ্লে বাইকটিকে দিয়েছে একটি হাই-টেক লুক। আধুনিক জীবনকে আরও সহজ করে তুলতে ট্যাঙ্ক ফ্ল্যাপের কাছেই রয়েছে ইউএসবি চার্জিং পয়েন্ট।

উত্তরা মোটর্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মতিউর রহমান অনুষ্ঠানে নতুন পালসার N160  উদ্বোধন করেন, তাঁর সাথে ছিলেন নাঈমুর রহমান, হেড অফ বিজনেস প্ল্যানিং, দিলীপ ব্যানার্জি, সিইও এবং সামীর মারদিকার, বিভাগীয় ব্যবস্থাপক – দক্ষিণ এশিয়া, বিভাগ, ও শচীন ডেশপান্ডে বাজাজ অটোস।

পালসার N160 নিয়ে বলতে গিয়ে, মতিউর রহমান বলেন, “বাংলাদেশে দামী মোটরসাইকেলের চাহিদা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে, কারণ গ্রাহকরা প্রিমিয়াম ও দামী বাইক থেকেই সেরা প্রযুক্তি এবং সেরা পারফরম্যান্স পান। উত্তরা মোটর্স বাংলাদেশে সর্বোচ্চ সংখ্যক বাজাজ মোটরসাইকেল সরবরাহ করে, কিন্তু পালসার N160 নতুন অনেক গ্রাহকদের আকাঙ্ক্ষা পূরণ করবে যারা স্পোর্টস বাইকের পাওয়ার এবং পারফরম্যান্স চান কিন্তু নির্দিষ্ট সিসি লিমিট-এর বাইরে যেতে চান না।”

বাজাজ পালসার N160 পাওয়া যাচ্ছে শুধুমাত্র উত্তরা মোটস লিমিটেডের সমস্ত ডিলার পয়েন্ট জড়ে ব্রুকলিন কালো রঙে। আমরা আমাদের মূল্যবান গ্রাহকদের নতুন মোটরসাইকেলটি দেখতে এবং অনুভব করার জন্য আমাদের চারপাশে ডিলারের শোরুমে স্বাগত জানাই। এই অসাধারণ স্পোর্টস বাইকটি এখন মাত্র ২,৬০,০০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

নতুন পালসার N160 কিনলে সাথে পাচ্ছেন দুই বছরের ওয়ারেন্টি ও চারবার ফ্রি সার্ভিসিং-এর সুযোগ। সহজ কিস্তিতেও পাওয়া যাচ্ছে। আরও জানতে ভিজিট করুন bangladesh.globalbajaj.com বা পালসার বাংলাদেশ-এর ফেসবুক পেজ www.facebook.com/pulsarbangladesh

উত্তরা মোটর্স
উত্তরা মোটর্স ১৯৭৯ সাল থেকে বাংলাদেশে বাজাজ অটো লিমিটেডের পার্টনার হয়ে তাদের তৈরি পণ্য সরবরাহ করছে। ‘কাস্টমার ফার্স্ট এই প্রধান উদ্দেশ্যের সাথে উত্তরা মোটর্স তার নিজস্ব ১৫টি শাখা এবং ৪০০টিরও বেশি শোরুম এবং সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমে বাংলাদেশের গ্রাহককে সেবা প্রদান করছে। বর্তমানে, উত্তরা মোটরস ঢাকার অদূরে সাভারে নিজস্ব কারখানা থেকে তিন লাখ ইউনিটের বার্ষিক ক্ষমতা সম্পন্ন বিশ্বমানের বাজাজ মোটরসাইকেল তৈরি করছে।

বাজাজ অটো
৭০টিরও বেশি দেশে ১৮ মিলিয়ন মোটরসাইকেল বিক্রি করেছে বাজাজ, তাই বাজাজ ব্র্যান্ড আক্ষরিক অর্থেই Loved in 70 Countries এটি ভারতের নাম্বার ১ মোটরসাইকেল রপ্তানিকারক, আর্ন্তজাতিকভাবে বিক্রি হওয়া প্রতি তিনটি বাইকের মধ্যে দুটি বাজাজের । কোম্পানিটি বিশ্বের বৃহত্তম থ্রী-হুইলার প্রস্তুুতকারক। বাজাজ অটো বিশ্বের প্রথম টু-হুইলার কোম্পানি যেটি ওঘজ ১ ট্রিলিয়নের মার্কেট ক্যাপে পৌঁছেছে এবং বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান টু-হুইলার কোম্পানি হিসাবে যাত্রা অব্যাহত রেখেছে। বাজাজ বিগত ৭৫ বছর ধরে সর্বোত্তম মানের ডিজাইন, প্রযুক্তি এবং আপসহীন মানের উপর নির্মিত পণ্য সরবরাহ করে আসছে। নতুন পণ্য উদ্ভাবনের প্রতি কোম্পানির অটল প্রতিশ্রুতি বাজাজকে ভবিষ্যতের জন্য প্রস্তুত করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here