বাগেরহাটে ভুল অপারেশনে মৃত্যু, চিকিৎসকের শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

0
222

বাগেরহাট প্রতিনিধি:
বাগেরহাটের কচুয়ায় চিকিৎসকের ভুল অপারেশনে আকবর শেখ (২৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অপারেশন করা চিকিৎসক কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মনজুরুল আলমের শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে নিহতের পরিবার। নিহত আকবর শেখ কচুয়া উপজেলার মাধবকাটি গ্রামের আবুল বাশার শেখের ছেলে। বুধবার (২৮ অক্টোবর) দুপুরে কচুয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নিহতের বাবা আবুল বাশার শেখ বলেন, আমার ছেলের পেটে ব্যাথা হলে ১৯ অক্টোবর আমি তাকে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। সেখানে চিকিৎসকরা জানান আপনার ছেলের এপেন্ডিসাইটিস হয়েছে, অপারেশন করতে হবে। ২০ অক্টোবর সকালে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ মনজুরুল আলম তার অপারেশন করেন। তিনি যখন অপারেশন করেছিল তখন হাসপাতালে বিদ্যুৎ ছিল না। অন্ধকারের মধ্যেই অপারেশন করেন ডা. মোঃ মনজুরুল আলম। অপারেশনের পর থেকে আমার ছেলে ধীরে ধীরে অসুস্থ হতে থাকেন। এক পর্যায়ে ২২ অক্টোবর কচুয়া হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন কচুয়ার চিকিৎসকরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (২৬ অক্টোবর) আমার ছেলে মারা যায়। মারা যাওয়ার পরে আমি বিভিন্ন সাংবাদিক ও স্থানীয়দের জানাই। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ মনজুরুল আলমকেও জানাই। তিনি আমাকে বিভিন্নভাবে টাকার লোভ দেখিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তপূর্বক চিকিৎসক ডা. মোঃ মনজুরুল আলমের শাস্তির দাবি করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলন শেষে বাগেরহাটের সিভিল সার্জন বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন নিহত আকবর শেখের বাবা আবুল বাশার শেখ। এদিকে পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার বাকসি গ্রামের অসিত কুমার নামের এক ব্যক্তিও ডা. মোঃ মনজুরুল আলমের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগে তিনি বলেছেন তার শালিকা বিউটি রানীকে ভুল অপারেশন করে একটি নারী ভুলে কেটে ফেলেছে। বিউটি রানী এখন মৃত্যু শয্যায়। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য চিকিৎসক ডা. মোঃ মনজুরুল আলমকে ফোন করা হলে তার নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়। বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, নিহত আকবর শেখের বাবা আবুুল বাশার শেখ লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখব। যদি চিকিৎসকের কোন গাফিলতি বা অবহেলার প্রমান পাওয়া যায় তাহলে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার কথা বলেন তিনি।