বলিউডের শ্রদ্ধা এবার বাংলাদেশের ছবিতে

0
431

খুলনাটাইমস বিনোদন: বলিউডের জনপ্রিয় নায়িকা শ্রদ্ধা কাপুর এবার অভিনয় করছেন বাংলাদেশের ছবিতে। ছবির নাম ‘মাসুদ রানা’। এই সিরিজের ‘সুলতা’ চরিত্রে অভিনয় করবেন তিনি। বিষয়টিনিশ্চিত করেছে ছবিটির দেশীয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। এর ফলে ছবির জন্য হলিউডের খ্যাতনামা তারকাদের সঙ্গে এবার যুক্ত হলো বলিউড। চলচ্চিত্রটির ডিজিটাল মার্কেটিং ম্যানেজার শাকিব হাসান জানান, এর উল্লেখযোগ্য কয়েকটি চরিত্রের একটি সুলতা। এটি নিয়ে শ্রদ্ধার সঙ্গে চ‚ড়ান্ত আলোচনা হয়েছে। শিগগিরই চুক্তিবদ্ধ হবেন তিনি। ‘আশিকি ২’-এর মাধ্যমে বলিউডে নায়িকা হিসেবে অভিষেক হয় শক্তি কাপুরের মেয়ে শ্রদ্ধার। বর্তমানে তিনি কাজ করছেন চলতি বছরে ভারতের সবেচেয়ে আলোচিত ছবি ‘সাহো’-তে। এতে তার বিপরিতে আছেন ‘বাহুবলী’খ্যাত নায়ক প্রভাস। ৩৫০ কোটি বাজেটের এ ছবিটি আজ মুক্তি পাবে। অন্যদিকে ৮৩ কোটি টাকা দিয়ে বড় পর্দায় কথাসাহিত্যিক কাজী আনোয়ার হোসেনের ‘মাসুদ রানা’কে আনছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। ছবিটির চরিত্রের জন্য বেশ কিছু তারকাকে ইতোমধ্যে চ‚ড়ান্ত করা হয়েছে। হলিউডসহ এতে থাকছেন বিশ্বের আলোচিত সব শিল্পীরা। অভিনয় করতে যাচ্ছেন রেসলিং দুনিয়ার ভয়ঙ্কর তারকা দ্য গ্রেট খালি। থাকছেন ‘দ্য ম্যাট্রিক্স’ ছবির খলনায়ক ড্যানিয়েল বার্নহার্ড। এছাড়াও আছেন ‘আয়রন ম্যান ২’খ্যাত হলিউডের জাঁদরেল অভিনেতা মিকি রোর্ক, গ্যাব্রিয়েল্লা রাইট, মাইকেল প্যারেসহ বেশ ক’জন তারকা।মাসুদ রানা’র প্রচ্ছদের সঙ্গে ড্যানিয়েল ও খালি জাজ মাল্টিমিডিয়া জানায়, ছবিতে ভিলেন হিসেবে থাকবেন খালি। ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রগুলো হলো- মাসুদ রানা, রুপা, সুলতা, কবির চৌধুরী ও রাহাত খান। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করবেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হলিউডের ডিরেক্টর আসিফ আকবর। ছবির সহ-প্রযোজক হিসেবে আছে হলিউডের সিলভার লাইন।
মাসুদ রানা চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করবেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হলিউডের ডিরেক্টর আসিফ আকবর। এই নির্মাতা যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটি থেকে ফিল্মমেকিংয়ের ওপর উচ্চতর পড়াশোনা করেছেন। ইতোমধ্যে তিনি হলিউডে ৩টি সিনেমা পরিচালনা করেছেন। ছবির সহপ্রযোজক হিসেবে আছে হলিউডের সিলভার লাইন। মাসুদ রানা সিরিজের প্রথম পর্ব ‘ধ্বংস পাহাড়’ নিয়ে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হচ্ছে। এর ইংরেজি নাম ‘এমআর-৯’ আর বাংলা নাম হবে ‘মাসুদ রানা’। শুটিং হবে মরিশাস, থাইল্যান্ড ও বাংলাদেশে। ছবিটি ইংরেজি ও বাংলা ভাষায় আসবে। পরে অন্য ভাষায় ডাবিং বা সাবটাইটেল হবে। এটি বিশ্বব্যাপী মুক্তি দেওয়া হবে।